শিরোনাম

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সফরে বদলে যাবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রাজনৈতিক সব সমীকরণ!

ষ্টাফ রিপোর্টার : | রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | পড়া হয়েছে 350 বার

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সফরে বদলে যাবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রাজনৈতিক সব সমীকরণ!

অনেকটাই বদলে যাচ্ছে রাজনৈতিক সমীকরণ। নতুন মেরুকরণ চলছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। স্থানীয় মাওলানাদের সাথে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের কিছু টানা পোড়েন চলছে অন্ততঃ এক যুগ ধরে। ক্রমশ: সে সম্পর্ক উন্নীত হচ্ছে। ১৯৯৮ সালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এনজিও বিরোধী আন্দোলন, ২০০১ সালে হাইকোর্টের ফতোয়া বিরোধী রায় নিয়ে ৬ মাদ্রাসা ছাত্র হত্যা ঘটনা এবং সর্বশেষ ২০১৬ সালে ১১ জানুয়ারি জেলার সব চেয়ে বড় মুসলিম ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসায় হামলা ভাংচুর ও মাদ্রাসা ছাত্র হত্যাকান্ড এবং পরবর্তীতে শহরে কথিত তৌহিদী জনতার সারা শহরে ভয়াবহ তান্ডব- সুর সম্রাট দি আলাউদ্দিন সঙ্গীতাঙ্গনে ভয়াবহ অগ্নিসংযোগ, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠানে অগ্নিসংযোগ ভাংচুর ধ্বংসলীলা ঘটনার পর থেকেই মূলত: স্থানীয় মাওলানাদের সাথে আওয়ামী লীগের সম্পর্ক কিছুটা ঘাটতি দেখা দেয়। ওই সময় সরকারের কোন দায়িত্বশীল মন্ত্রী ও নেতা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সফর করলেও জামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসায় যাননি। ক্ষতিগ্রস্ত স্থাপনা পরিদর্শন করেন ঠিকই। কিন্তু ক্ষতিগ্রস্ত মাদ্রাসা ও নিহত মাদ্রাসা ছাত্রের কোন খোঁজ না নেয়ায় এ নিয়ে স্থানীয় ধর্মীয় নেতাদের মধ্যে মারাত্মক ক্ষোভ সৃষ্টি হয়। নানা সমালোচনা হয়। সরকারের নীতি নির্ধারক পর্যায়ের সিদ্ধান্তে সে সময়কার ঘটনার সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নিষ্পত্তি হয়।

স্থানীয় মাওলানাদের বিশাল অংশই কোন রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত না থাকায় ক্রমশ:ই উপরের নির্দেশে তাদের সাথে সামাজিক যোগাযোগ বাড়াতে থাকে। এ ক্ষেত্রে পুলিশের পক্ষ থেকে সার্বিক সহায়তা করা হয়। এ ধারাবাহিকতায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী গতকাল ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এসে মাদ্রাসার ছাত্রদের পাগড়ি প্রদান ও হামদ না”ত প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে ক্রেস্ট প্রদান অনুষ্ঠানে যোগ দেন। স্বাধীনতার পর এবারই প্রথম বারের মতো কোন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাদ্রাসার অনুষ্ঠানে যোগ দিলেন।


জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ১০৫তম বার্ষিক সভা গত বৃহস্পতিবার থেকে শহরের কাজীপাড়াস্থ কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে শুরু হয়। ১০৫ বছরের ইতিহাসে এবাই কোন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাদ্রাসা ও এর অনুষ্ঠানে এলেন। শেষ দিন শনিবার (১৭.০২.২০১৮) বিকেলে ছাত্রদের পাগড়ি প্রদান ও ২৫জন ছাত্রকে ক্রেস্ট প্রদান অনুষ্ঠানে যোগ দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোঃ আসাদুজ্জামান খান কামাল। এতে সভাপতিত্ব করেন জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসার প্রধান মুরুব্বী সদরুল মুহদারিসীন আশেক এলাহী ইব্রাহিমী। এ ছাড়াও মন্ত্রী জামিয়া ইসলামিয়া মাদ্রাসার ফখরে বাঙ্গাল ছাত্রাবাস এর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করার কথা থাকলেও বিকেলে অজ্ঞাত কারণে তিনি সেখানে যাননি। স্থানীয় সূত্রগুলো বলছে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মাদ্রাসার বার্ষিক সভায় যোগ দেয়ার মাধ্যমে স্থানীয় মাওলানাদের মধ্যে বিভিন্ন সময়ের ঘটনা নিয়ে যে টানাপোড়েন ছিল তা কমে আসবে। এর মাধ্যমে বদলে যাবে রাজনীতির সব সমীকরণ। যা সরকার বা ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের জন্য ইতিবাচকই হবে।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার বলেন, কোন কোন বিষয়ে তাদের সাথে আমাদের মত পার্থক্য ছিল। দূরত্ব সৃষ্টি হয়নি। টানা পোড়েনও হয়নি। জেলা পুলিশ সুপার ও অতিরিক্ত ডিআইজি মিজানুর রহমান বলেন, আমরা বিশ্বাস করি একজন মুসলমান হিসেবে একজন মুসলমানের সঙ্গে সম্পর্ক থাকবে। এটাই স্বাভাবিক। তাই সবার সাথে সম্পর্ক রেখে সরকার যাতে সুষ্ঠু ভাবে দেশ পরিচালনা করতে পারে সে প্রচেষ্টাই আমাদের।

জামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মুফতি মোবারক উল্লাহ বলেন, অনাকাক্সিক্ষত কিছু ঘটনা যে ঘটেছে তা তো ঘটেই গেছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দেশের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে ঘুরে কওমি মাদ্রাসার পক্ষেই কথা বলেন। তিনি তো আমাদের লোক। তাই উনাকে আমরা দাওয়াত দিয়েছি। উনি আমাদের দাওয়াত রেখেছেন।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১