শিরোনাম

হাজারো মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে চীর নিদ্রায় শায়িত হলেন

সাবেক উপমন্ত্রী অ্যাডভোকেট হুমায়ূন কবির

শামীম-উন-বাছির | সোমবার, ২৮ অক্টোবর ২০১৯ | পড়া হয়েছে 284 বার

সাবেক উপমন্ত্রী অ্যাডভোকেট হুমায়ূন কবির

হাজারো মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে চীর নিদ্রায় শায়িত হলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার গনমানুষের নেতা, জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক উপমন্ত্রী আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট হুমায়ূন কবির। সোমবার (২৮অক্টোবর ২০১৯) বাদ জোহর জেলা ঈদগাহ ময়দানে মরহুমের নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়।

নামাজে জানাযায় আওয়ামীলীগ নেতা ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী ক্যাপ্টেন (অবঃ) তাজুল ইসলাম এমপি, এবাদুল করিম বুলবুল এমপি, বি.এম ফরহাদ হোসেন সংগ্রাম এমপি, বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়া এমপি, জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খান, পুলিশ সুপার মোঃ আনিসুর রহমান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শফিকুল আলম, বিএনপির নির্বাহী কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট হারুন-আল-রশীদ, সাবেক এমপি ও জেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক এমপি আলহাজ্ব মোঃ শাহআলম, জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তাজ মোহাম্মদ ইয়াছিন, সাধারণ সম্পাদক আল-মামুন সরকার, জেলা বিএনপির সভাপতি হাফিজুর রহমান মোল্লা কচি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবের সভাপতি খ.আ.ম রশিদুল ইসলাম, চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির সভাপতি আজিজুল হক, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ওসমান গনিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতি, পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ জেলার সর্বস্তরের মানুষ অংশ নেন।


নামাজে জানাযার আগে পরিবারের পক্ষ থেকে মরহুমের বড় ছেলে এনায়েত কবির বাবু উপস্থিত মুসল্লীদের কাছে তার বাবার জন্য দোয়া চান।
পরে পুলিশের একটি চৌকষ দল তাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা প্রদান করেন। নামাজে জানাযা শেষে সংসদ সদস্যগন, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসনসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে মরহুমের কফিনে পুষ্পস্তবক অর্পনের মাধ্যমে মরহুমের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন।
নামাজে জানাযা শেষে পৌর এলাকার উত্তর পৈরতলায় পারিবারিক কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়।

উল্লেখ্য গত রোববার সকাল পৌনে ৯টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন অ্যাডভোকেট হুমায়ূন কবির।
বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী অ্যাডভোকেট হুমায়ূন কবির ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদের ভিপি ছিলেন। তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধে সাহসী ভূমিকা পালন করেন। দেশ স্বাধীনের পর তিনি পর পর দুইবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর সভার চেয়ারম্যান ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর আসন থেকে দুইবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সাবেক উপ-মন্ত্রী এবং তৎকালীন প্রধানমন্ত্রীর (কাজী জাফর) রাজনৈতিক সচিব ছিলেন। তাঁর স্ত্রী মিসেস নায়ার কবির বর্তমানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর সভার মেয়র ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১