শিরোনাম

সরাইল হাসপাতালে সরজমিনে ৩ ঘন্টা চিকিৎসক ১৮, উপস্থিত-৫, হায়রে স্বাস্থ্য সেবা!

প্রতিনিধি | রবিবার, ১৩ মার্চ ২০১৬ | পড়া হয়েছে 734 বার

সরাইল হাসপাতালে সরজমিনে ৩ ঘন্টা চিকিৎসক ১৮, উপস্থিত-৫, হায়রে স্বাস্থ্য সেবা!

৫০ শয্যা সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। গত শনিবার সরজমিনে ৩ ঘন্টায় চোখে পড়ে স্বাস্থ্য সেবার বেহাল দশা। হতাশ রোগীরা। বর্তমানে এখানে মোট চিকিৎসক ১৮ জন। অসুস্থ্যতার জন্য অফিসে আসেননি ইউএইচও। সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত হাসপাতালে উপস্থিত পাওয়া যায় মাত্র ৫ জন চিকিৎসককে। আবার কেউ আসেন সাড়ে দশটায়। কেউ ১১টায়। চারিদিকে ঘুরছে রোগীরা। প্রধান কর্মকর্তা নেই। তাই অনেকেই সুযোগ খুচ্ছেন চলে যাওয়ার। সূত্র জানায়, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সকাল ৮টা থেকে বিকেল আড়াইটা পর্যন্ত ডিউটি করার কথা চিকিৎসকদের। গতকাল সকাল ৯টায় সরজমিনে সরাইল হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায় অধিকাংশ চিকিৎসকের কক্ষে ঝুলছে তালা। জরুরী বিভাগে রোগী দেখছেন চিকিৎসা সহকারি ডাঃ মোঃ শহীদুল্লাহ। নতুন ভবনের একটি কক্ষে দীর্ঘ লাইন। রোগী দেখছেন মেডিকেল অফিসার ডাঃ আনাস ইবনে মালেক। আরেকটি কক্ষে শিশু রোগীদের প্রচন্ড ভীড়। সেখানে রোগী দেখছেন আরেক উপ-সহকারি কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ মাহবুবুর রহমান। টিকেট কাউন্টারে বিশাল লাইন। টিকেট হাতে এদিক ওদিক ঘুরছে রোগীরা। তিনটি কক্ষের দরজা খোলা। লাইনে আছে রোগী। কিন্তু নেই চিকিৎসক। ঠিক ১০টায় দৌড়ে কক্ষে প্রবেশ করে রোগী দেখা শুরু করেন ডাঃ কাজী শাহরিয়ার বিন আজহার ও ডাঃ ফাহমিদা আলফাজ। ঘড়ির কাটায় যখন ঠিক ১১টা। তখন তড়িঘড়ি করে কক্ষে প্রবেশ করেন ডেন্টাল সার্জন ডাঃ নাফিসা আলম। একই সময়ে জরুরী বিভাগে আসেন ডাঃ লুপা। আর ১১টা ১০ মিনিটে দেখা যায় ইউএইচও’র কক্ষে বসে মুঠোফোন টিপছেন ডাঃ মোস্তাকিত বিল্লাহ বাপ্পি। দুপুর ১২টা পর্যন্ত ১৮ জন চিকিৎসকের মধ্যে দেখা মিলে মাত্র ৫ জনের। আর চিকিৎসক কম থাকায় রোগীর লাইন দীর্ঘ হচ্ছে। মোঃ জসিম মিয়া (৩৫) নামের এক ব্যক্তি অভিযোগ করেন, তার স্বজন কালিকচ্ছ ইউনিয়নের চানপুর গ্রামের দুই রোগী কোহিনুর (২১) ও পারুল (২০)। টিকেট কেটে ১ ঘন্টা ধরে ঘুরছেন। ডাক্তার পাচ্ছেন না। হঠাৎ সাড়ে ১০টার দিকে একটি কক্ষে ২ জন মহিলা ও ১ জন পুরুষ চিকিৎসককে বসে গল্প করতে দেখেন। তিনি রোগীদের নিয়ে তাদের সামনে হাজির হন। চিকিৎসা দিতে বলেন। এতে ওই চিকিৎসকরা খুবই রাগান্বিত হন। জসিমের উদ্যেশ্যে তারা বলেন এটা রোগী দেখার জায়গা না। এখানে রোগী দেখা যাবে না। সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ইউএইচও) ডাঃ হাসিনা আকতার অসুস্থ্য কন্ঠে মুঠোফোনে বলেন, হাসপাতালে চিকিৎসক ১৮ জন। ৩ জন প্রশিক্ষণে, ২ জন ছুটিতে আর ২ জন নাইট করেছে বলে আসেননি।


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০