শিরোনাম

সরাইলে ট্যাংক-লরি ৩ শ্রমিক নেতা নিহতের ঘটনায় তদন্ত কমিটি

প্রতিনিধি | মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০১৬ | পড়া হয়েছে 587 বার

সরাইলে ট্যাংক-লরি ৩ শ্রমিক নেতা নিহতের ঘটনায় তদন্ত কমিটি

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার বেড়তলা এলাকায় হাইওয়ে পুলিশের তাড়া খেয়ে ট্রাক চাপায় মোটরসাইকেল আরোহী তিন শ্রমিক নেতা নিহতের ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের একটি কমিটি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার ২৮ জুন হাইওয়ে পুলিশের গাজীপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এনামুল কবীরকে প্রধান করে এ কমিটি করা হয়।


কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন, হাইওয়ে পুলিশের সিলেট সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার শৈলেন চাকমা ও শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকির হোসেন।

কমিটির প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এনামুল কবীর জানান, সোমবার (২৭ জুন) দুর্ঘটনার পর তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তদন্ত কমিটি আগামী ১০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দেবে।

এদিকে, তিন শ্রমিকনেতা নিহতের প্রতিবাদে মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত সারাদেশে এক ঘণ্টা কর্মবিরতি পালন করেছে ট্যাংক-লরি শ্রমিক ফেডারেশন। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায়ও দুপুর ১২টা পর্যন্ত অর্ধদিবস কর্মবিরতি পালন করা হয়।

সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তিন আরোহীসহ চলন্ত মোটর সাইকেলটি থামানোর সংকেত দেয় মহাসড়কে টহলরত হাইওয়ে পুলিশ সদস্যরা। এ সময় তিনজন মোটরসাইকেলে চড়ার অভিযোগে পুলিশ তাদের আটক করে টাকা দাবি করে। আরোহীরা টাকা না দিয়ে ছুটে যেতে চাইলে পুলিশের এক সদস্য পেছন দিক থেকে লাঠি ছুঁড়ে মারেন। এতে মোটর সাইকেলটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পেছন দিক থেকে আসা পাথরবোঝাই ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেলের আরোহী জেলা ট্যাংক-লরি শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি জাহাঙ্গীর খন্দকার (৪২), সাধারণ সম্পাদক আলী আজম রাজু (৪৩) ও দপ্তর সম্পাদক শাহজাহান মিয়া (৫২) নিহত হন। তাদের সবার বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার ঘাটুরা গ্রামে।

এ দুর্ঘটনার পর স্থানীয় ক্ষুব্ধ জনতা ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক ও কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে। এতে মহাসড়কের দুই পাশে কয়েক কিলোমিটার এলাকা জুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০