শিরোনাম

সরাইলে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি : | সোমবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ | পড়া হয়েছে 333 বার

সরাইলে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

সরাইল উপজেলা থেকে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গত সোমবার দুপুর ১২টার দিকে স্থানীয় উপজেলা কমপ্লেক্স থেকে পুলিশ ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে। শ্বশুরবাড়ির লোকজন শ্বাসরোধে হত্যা করে লাশ ফেলে পালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে নিহত গৃহবধূর পরিবারের লোকজন।

জানা গেছে, নিহত গৃহবধূর নাম ইয়াসমিন বেগম (২৮)। ১২ বছর আগে সরাইল উপজেলা সদরের বড্ডাপাড়া গ্রামের আবদুল হাকিমের ছেলে রজন মিয়ার সঙ্গে সদর উপজেলার সুহিলপুর ইউনিয়নের মীরহাটি গ্রামের আবদুল আলীর মেয়ে ইয়াসমিন বেগমের বিয়ে হয়। এক বছর আগে ইয়াসমিন বেগম কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েন। এরপর অধিকাংশ সময় বাবার বাড়িতেই থাকতেন। গত শনিবার রজন মিয়া ও তাঁর বোন মলিনা বেগম ইয়াসমিনকে তাঁর বাবার বাড়ি থেকে শ্বশুরবাড়িতে নিয়ে যান। সোমবার সকাল ১০টার দিকে পরিবারের লোকজন প্রতিবেশীদের মাধ্যমে খবর পান ইয়াসমিনের লাশ হাসপাতালে রয়েছে।


ইয়াসমিনের ছোট ভাই আলাল মিয়া (২২) অভিযোগ করেন, ‘শনিবার রজন মিয়া ও তার বোন মলিনা বেগম আপার চিকিৎসার জন্য ৫০ হাজার টাকা দাবি করেছিল। টাকা না পেয়ে আপাকে টেনেহিঁচড়ে শ্বশুরবাড়িতে নিয়ে গেছে। তারাই ইয়াসমিনকে গলাটিপে হত্যা করেছে।’ ইয়াসমিন বেগম কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন বলে তিনি স্বীকার করেছেন। তিনি জানান, ইয়াসমিন নিঃসন্তান ছিলেন। তবে তাঁর একটি দত্তক শিশুপুত্র রয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসা কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলাম বলেন, ‘সকাল পৌনে নয়টার দিকে কয়েকজন নারী-পুরুষ ওই গৃহবধূর লাশ হাসপাতালে রেখে চলে যায়। তখন আমি ওই গৃহবধূর নাম পরিচয়ও জানতে পারিনি।’

সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দায়িত্বে থাকা পরিদর্শক (তদন্ত) মো. কামরুজ্জামান বলেন, লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গৃহবধূর গলায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় এখনো কোনো মামলা হয়নি। ময়নাতদন্তের প্রক্রিয়া চলছে।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১