শিরোনাম

সরকারি সম্পত্তি দখলের অভিযোগ অস্বীকার করলেন ইউপি চেয়ারম্যান

বিজয়নগর প্রতিনিধি | সোমবার, ০৬ মে ২০১৯ | পড়া হয়েছে 292 বার

সরকারি সম্পত্তি দখলের অভিযোগ অস্বীকার করলেন ইউপি চেয়ারম্যান

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে ২৭ একর সরকারি সম্পত্তি দখলের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন উপজেলার ইছাপুরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জিয়াউল হক বকুল। গত রোববার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই অভিযোগ অস্বীকার করেন।

সংবাদ সম্মেলনে ইউপি চেয়ারম্যান জিয়াউল হক বকুল তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, চেয়ারম্যান হিসেবে এলাকার উন্নয়নে ভূমিকা রাখায় ঈর্ষান্বিত হয়ে এ ধরণের অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। সংবাদ সম্মেলনে ইছাপুরা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যরা (মেম্বার) উপস্থিত ছিলেন।


এর আগে সরকারি সম্পত্তি দখলের অভিযোগে গত বৃহস্পতিবার বিজয়নগরে জিয়াউল হক বকুলের বিরুদ্ধে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে অভিযোগ করা হয়, ইছাপুরা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জিয়াউল হক বকুল ও তাঁর চাচাতো ভাই উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান বাবুল আক্তার মির্জাপুর এলাকার ২৭ একর সরকারি জমির জাল দলিল তৈরি করেছেন। এ নিয়ে আদালতে মামলাও চলমান। ইছাপুরা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আক্তার হোসেনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বুধন্তী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান, পত্তন ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম, হরষপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান।

ওই মানববন্ধনে দেয়া বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে গতকাল রোববার ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে ইছাপুরা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ জিয়াউল হক বকুল বলেন, ‘২৭ একর সম্পত্তিতো নয়ই, এক শতাংশ সরকারি জমির জাল দলিল আমি করিনি বা আমার দখলে নেই। স্থানীয় সংসদ সদস্যের সহায়তায় শতভাগ বিদ্যুতায়নসহ এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড করায় সাবেক চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন এ ধরণের প্রচারণা চালাচ্ছেন। ফেসবুকে মিথ্যা প্রচারণা চালানো হচ্ছে। এমনকি আমি ও আমার পরিবারকে প্রাণনাশের হুমকিও দেয়া হচ্ছে।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১