শিরোনাম

শিক্ষকের ভুলে জেএসসি পরীক্ষা দিতে পারেনি ছাত্রী!

আখাউড়া প্রতিনিধি : | রবিবার, ০৫ নভেম্বর ২০১৭ | পড়া হয়েছে 353 বার

শিক্ষকের ভুলে জেএসসি পরীক্ষা দিতে পারেনি ছাত্রী!

শিক্ষকের ভুলে জেএসসি পরীক্ষা দিতে পারেনি লুৎফা আক্তার নামে এক শিক্ষার্থী।

আখাউড়া পৌর শহরের নাছরিন নবী গালস্ স্কুল অ্যান্ড কলেজের অষ্টম শ্রেণির ওই ছাত্রী গত বুধবার জেএসসি পরীক্ষা দিতে গিয়ে প্রবেশপত্রে অন্য নাম ঠিকানা ও ছবি থাকায় কেন্দ্র সচিব তাকে পরীক্ষা দিতে দেননি। তারপর বিষয়টি নিয়ে অনেক অকুতি-মিনতি করেও সুরাহা করতে পারেননি শিক্ষার্থী ও তার পরিবার। এখন তার পরিবার চরম হতাশায় রয়েছে মধ্যে রয়েছে। তারা ঘটনার তদন্ত করে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে দোষী শিক্ষকের বিচারের দাবি জানান।
এদিকে দরিদ্র ঘরের মেয়ে লুৎফা আক্তার পরীক্ষা দিতে না পারায় চরম হতাশায় ভুগছে।
জানা গেছে, ওই ছাত্রী চলতি বছরের জেএসসি পরীক্ষার জন্য অন্যান্য শিক্ষার্থীদের ন্যায় তার নামও নিবন্ধন করে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। গত (৩০ অক্টোবর) লুৎফাকে প্রবেশপত্রের ফটোকপি দেন শ্রেণি শিক্ষক কয়েস আলী।


এসময় লুৎফা আক্তার তার প্রবেশপত্রে পরীক্ষার্থীর নাম বৃষ্টি আক্তার, পিতা সেন্টু মিয়া, মাতা পারভীন বেগম দেখতে পায়।

পরে পরীক্ষার্থীর অভিভাবক বিষয়টি সংশোধনের জন্য প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ (সম্প্রতি দুর্নীতির দায়ে ছুটিতে থাকা) দেবব্রত বণিক পরিমলের সাথে যোগাযোগ করেন। তারপর শিক্ষক এখন যে নামে (ভুলনামে) প্রবেশ এসেছে সে নামেই পরীক্ষা দেওয়ার পরামর্শ দেন।

কিন্তু বুধবার আখাউড়া শহীদ স্মৃতি ডিগ্রী কলেজের পরীক্ষা কেন্দ্রে লুৎফা পরীক্ষা দিতে যায়। পরীক্ষা শুরুর কিছুক্ষণ পর কেন্দ্র সচিব মো. রফিকুল ইসলামের সন্দেহ হয়।

এরপর তিনি জানতে পারেন অন্যের প্রবেশ পত্রে লুৎফা পরীক্ষা দিতে এসেছে। এসময় পরীক্ষার কেন্দ্র থেকে তাকে বের করে আটকে দেয় হল কর্তৃপক্ষ। পরবর্তীতে অভিভাবকের অঙ্গিকারনামা রেখে ছাত্রকে ছেড়ে দেন স্কুল কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মুহাম্মদ শামসুজ্জামান বলেন, বিষয়টি দ্রুত তদন্তের জন্য উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, তদন্তে যার গাফিলতি পাওয়া যাবে তার বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১