শিরোনাম

যৌন নিপীড়ন ও ধর্ষণের ঘটনা প্রতিরোধে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত

| বৃহস্পতিবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮ | পড়া হয়েছে 166 বার

যৌন নিপীড়ন ও ধর্ষণের ঘটনা প্রতিরোধে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত

“ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়ন মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ পালন উপলক্ষে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ এর যৌন নিপীড়ন ও ধর্ষণের ঘটনা প্রতিরোধে দেশব্যাপী প্রতিবাদ সমাবেশ কর্মসূচির আওতায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার লিগ্যাল এইড উপপরিষদের উদ্যোগে গতকাল ৫ ডিসেম্বর বিকাল সাড়ে ৪টায় প্রেস ক্লাবের সামনে জেলা শাখার সভানেত্রী শোভা রানী পালের সভাপতিত্বে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

লিগ্যাল এইড সম্পাদক লাকী সরকারের উপস্থাপনায় সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সাথী চৌধুরী, সহ-সভাপতি আম্বিয়া বেগম, অর্থ সম্পাদক আসমা খানম কার্যকরী সদস্য রতœা বেগম। মহিলা পরিষদের কর্মসূচির প্রতি সংহতি জানিয়ে আরো বক্তব্য রাখেন সিপিবি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সাধারণ সম্পাদক সাজিদুল ইসলাম, উদীচী ব্রাহ্মণবাড়িয়ার শাজাহান সোহেল, সাংস্কৃতিক সংগঠক ফেরদৌস রহমান।


বক্তাগণ বলেন, ধর্ষণ যে মানবতা বিরোধী একটি অপরাধ তা সারা বিশ্বে স্ব^ীকৃত। নারী ও কন্যা শিশুরা ব্যক্তিগত, পারিবারিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সাম্প্রদায়িক সহিংসতাসহ বিভিন্ন দ্বন্দ্বের কারণে ধর্ষণের শিকার হয়ে থাকে। ক্ষমতা প্রদর্শনের ক্ষেত্রে ধর্ষণকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা হয়। যুদ্ধ ও সংঘর্ষকালীন সময়ে এমনকি গণতান্ত্রিক পরিবেশেও ধর্ষণের ঘটনাকে ব্যবহার করা হয় প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার হাতিয়ার হিসেবে। নারীকে অবদমন করে রাখার পিতৃতান্ত্রিক মানসিকতা থেকে সাধারণত ধর্ষণের ঘটনা ঘটানো হয়। কিন্তু এ অবস্থা চলতে দেয়া যায় না। আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করতে হবে। নারী মানুষ। তারা এদেশের মুক্তিযুদ্ধে এবং দেশের অর্থনৈতিক রাজনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নে বিরাট অবদান রেখে চলেছেন। নারীর উপর ধর্ষণ যৌন নিপীড়ন সহ সকল প্রকার নিপীড়ন বন্ধ করা না গেলে দেশের অগ্রগতি থমকে যাবে। কাজেই যে কোন পরিস্থিতিতে নারী ধর্ষণ যৌন নীপিড়ন সহ নারীর প্রতি সকল প্রকার সহিংসতার বিরুদ্ধে আমাদের রূখে দাঁড়াতে হবে। প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। কারণ, নারী পুরুষে বৈষম্য বজায় রেখে নারীকে লাঞ্ছিত করে তার মানবাধিকার লঙ্ঘন করে আর যাই হোক গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করা যায় না। কারণ, নারী আমাদের পরিবার, সমাজ এবং রাষ্ট্রেরই একটি অংশ। তাই মানবতার স্বার্থে, মানবাধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য এ সমস্ত অপরাধ নির্মূল করতে হবে। সেজন্য আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। কোন নারী নির্যাতনকারী যাতে কোনভাবেই আশ্রয় প্রশ্রয় না পায় তাকে বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। এ দায়িত্ব রাষ্ট্রের, প্রশাসনের এবং সকল সচেতন মানুষের। তাই আসুন আমরা সকল প্রকার নারী নির্যাতনসহ নারী ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলে প্রতিবাদ জানাই। আর এজন্য নারী পুরুষ তরুণ তরুণী সকলকে সচেতন করে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিবাদ প্রতিরোধ গড়ে তুলি।-প্রেস বিজ্ঞপ্তি

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১