শিরোনাম

মোস্তাফিজের আঘাত

স্পোটর্স ডেস্ক : | বৃহস্পতিবার, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | পড়া হয়েছে 198 বার

মোস্তাফিজের আঘাত

বাংলাদেশের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের শীর্ষ উইকেট শিকারি রাজ্জাক প্রথম সেশন শেষ হওয়ার আগে জোড়া আঘাত করেন শ্রীলঙ্কার ব্যাটিং লাইন আপে। নিজের ষষ্ঠ ওভারের প্রথম দুই বলে উইকেট নিয়ে হ্যাটট্রিকের সুযোগ পান এ স্পিনার। যদিও তিনি পাননি টানা বলে তৃতীয় উইকেটের দেখা।
ঢাকা টেস্টে প্রথম উইকেট নেন রাজ্জাক। ১৪ রানে প্রথম উইকেট নিয়ে দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তনের আভাস দেন তিনি। নিজের তৃতীয় ওভারের প্রথম বলে দিমুথ করুনারত্নেকে স্টাম্পিং করে ফেরান বাংলাদেশের এই অভিজ্ঞ স্পিনার। তার বল ক্রিজের বাইরে আসা শ্রীলঙ্কার ওপেনারের দুই পায়ের মধ্যে দিয়ে চলে যায় লিটন দাসের হাতে। বাংলাদেশি উইকেটরক্ষক সহজেই স্টাম্প উপড়ে ফেলেন। কিন্তু ক্রিজে নেমে আবারও স্বাগতিকদের অস্বস্তিতে ফেলেন কুশল ও ধনঞ্জয়া ডি সিলভা। অবশ্য চট্টগ্রাম টেস্টের এই বিপজ্জনক জুটি বেশি দূর যেতে পারেনি মিরপুরে। ধনঞ্জয়াকে ১৯ রানে স্লিপে সাব্বির রহমানের ক্যাচ বানান তাইজুল। তাদের জুটিটা ছিল ৪৭ রানের।

এরপর দানুশকা গুনাথিলাকাকে নিয়ে কুশল আরেকটি প্রতিরোধ গড়েছিলেন। রাজ্জাক সেটা ভেঙে দেন তার ষষ্ঠ ওভারে। ২৬ বলে ১৩ রান করে মুশফিকের কাছে ক্যাচ দেন গুনাথিলাকা। ভাঙে ৩৫ রানের জুটি। মাঠে নেমে প্রথম বলেই দিনেশ চান্ডিমাল বোল্ড। রাজ্জাকের বল বুঝে ওঠার আগেই তার স্টাম্প ভেঙে দেয়। বাংলাদেশি স্পিনার হ্যাটট্রিকের সুযোগটা কাজে লাগাতে পারেননি রোশেন সিলভা বল ঠেকিয়ে দিলে।


দ্বিতীয় সেশনেও দারুণ শুরু হয় স্বাগতিকদের। ৮১ বলে পঞ্চম ফিফটি করা কুশল থামেন লাঞ্চের পরপরই। প্রথম সেশনে তিন উইকেট নেওয়ার পর রাজ্জাক দ্বিতীয় সেশনের প্রথম ওভারেই ফেরান তাকে। ৬৮ রানে বোল্ড হন শ্রীলঙ্কার ওপেনার। এক ইনিংসে প্রথমবার ৪ উইকেট পান রাজ্জাক। পরের ওভারেই মাত্র তিন বল খেলে তাইজুলের দ্বিতীয় শিকার হন নিরোশান ডিকবেলা (১)।

১১০ রানে শ্রীলঙ্কা তাদের ৬ উইকেট হারালে দিলরুয়ানকে নিয়ে রোশেন সিলভা ৫২ রানের জুটি গড়েন, সেটা ভেঙে দেন তাইজুল। ১৮ রানে মোস্তাফিজুরের ওভারে জীবন পাওয়া দিলরুয়ানকে ৩১ রানে ফিরিয়ে নিজের তৃতীয় উইকেটটি নেন এই স্পিনার। মোস্তাফিজ তার নবম ওভারের প্রথম বলে আকিলাকে ফেরালে শেষ হয় দ্বিতীয় সেশন।

ঢাকায় সিরিজ নির্ধারণী টেস্টে টস জিতেছে শ্রীলঙ্কা। তারা ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়। এই ম্যাচ দিয়ে চার বছর পর টেস্টে ফিরলেন বাংলাদেশের অভিজ্ঞ স্পিনার রাজ্জাক। ২০১৪ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চট্টগ্রামে শেষ টেস্ট খেলেছিলেন তিনি। আর ওই বছরের আগস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের পর এই প্রথম জাতীয় দলের জার্সি পরলেন রাজ্জাক।

এছাড়া চট্টগ্রাম টেস্টে দলের বাইরে থাকা সাব্বির রহমান ফিরেছেন দ্বিতীয় ম্যাচের একাদশে। মোসাদ্দেক হোসেন ও সানজামুল ইসলাম বাদ পড়েছেন।

শ্রীলঙ্কা দলে টেস্ট অভিষেক হলো আকিলা ধনঞ্জয়ার। লাকশান সান্দাকান বাদ পড়েছেন। এছাড়া পেসার লাহিরু কুমারাকে বাইরে রেখে ব্যাটসম্যান গুনাথিলাকাকে নিয়েছে সফরকারীরা। দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথমটি হয়েছিল ড্র।

চট্টগ্রাম টেস্টের মতো এক পেসার, সাত ব্যাটসম্যান ও তিন বিশেষজ্ঞ স্পিনার নিয়ে ঢাকা টেস্টের একাদশ সাজিয়েছে বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্ট।
বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ (অধিনায়ক), লিটন দাস, সাব্বির রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, আব্দুর রাজ্জাক, তাইজুল ইসলাম ও মোস্তাফিজুর রহমান।

শ্রীলঙ্কা একাদশ: দিমুথ করুনারত্নে, কুশল মেন্ডিস, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা, রোশেন সিলভা, দিনেশ চান্ডিমাল (অধিনায়ক), নিরোশান ডিকবেলা, দানুশকা গুনাথিলাকা, দিলরুয়ান পেরেরা, আকিলা ধনঞ্জয়া, রঙ্গনা হেরাথ ও সুরাঙ্গা লাকমল।
সংক্ষিপ্ত স্কোর : ৫৭.১ ওভারে ৮ উইকেটে ২০৫ রান

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১