শিরোনাম

মাহে রমজান

মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান | রবিবার, ০৩ জুন ২০১৮ | পড়া হয়েছে 404 বার

মাহে রমজান

যে ব্যক্তি মিথ্যা কথা ও কাজ পরিত্যাগ করবেনা তার শুধুমাত্র খানাপিনা পরিত্যাগ করা ছাড়া আল্লাহর কোন প্রয়োজন নেই।শুধুমাত্র ক্ষুধার্ত ও পিপাসায় কাতর থাকার নাম ই রোজা বা এবাদত নয়।

রোজার উদ্দেশ্য সম্পর্কে রাসুল(সা:)এরশাদ করেন ঈমান ও এহতেসাবের সাথে যে ব্যক্তি রোজা রাখবে তার অতীত গুণাহ সমূহ ক্ষমা করে দেওয়া হবে।


রোজা অবস্থায় গীবত, পরনিন্দা ও মিথ্যা কথা বললে রোজা নষ্ট হয়ে যায়।
ইবনে আব্বাস (রা:)বলেন,একবার দুইজন লোক যোহর কিংবা আসরের নামাজ পড়ল। তারা দুজন ই রোজাদার ছিল। রাসুল(সা:)নামাজ শেষ করে দুইজনকে বললেন, তোমরা পুনরায় ওযু করে নামাজ আবার পড়ে নাও।এবং রোজা এখনো চালিয়ে যাও।কিন্তু অন্যদিন তা কাযা করে নিও। তারা বললেন,হে আল্লাহর রাসুল(সা:)কেন? রাসুল(সা:)বললেন, তোমরা অমুক ব্যক্তির গীবত ও নিন্দা করেছো তাই। (মিশকাত শরিফ)।

নিয়ামতপূর্ণ এই পবিত্র মাসে আল্লাহতায়ালা তার বান্দাহর পাপ মোচনের বাহানা তালাশ করে। তাই রোজা অবস্থায় কারো গীবত, পরনিন্দা, মিথ্যাচার থেকে বিরত থেকে শুদ্ধ ভাবে রোজা রাখার প্রচেষ্টা ই হয়তো আমাদের গুনাহ মাফের ওসিলা হয়ে যেতে পারে।

আল্লাহতায়ালা আমাদের সকলকে ত্রুটিমুক্ত রোজা পালন করার তাওফিক দান করুণ। আমিন।

লেখক
মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান
শিক্ষক, জামিয়া কোরআনিয়া সৈয়দা সৈয়দুন্নেছা ও কারিগরি শিক্ষালয়, কাজীপাড়া, ব্রাহ্মণবাড়িয়া।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০