শিরোনাম

মাহে রমজান

মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান | শুক্রবার, ২৫ মে ২০১৮ | পড়া হয়েছে 179 বার

মাহে রমজান

রমজান মাসের বিশেষ এক গুরুত্বপূর্ণ এবাদত হচ্ছে তারাবিহ এর নামাজ।তারাবিহ এর নামাজ সুন্নাতে মুয়াক্কাদাহ। আদায় না করলে অবশ্য ই গুনাহগার হবে।

তারাবিহ -তারাবিহাতুন এর বহুবচন। তারাবিহাতুন শব্দের অর্থ আরাম করা,বিশ্রাম করা।


হজরত ওমর (রা:)তার শাসনকালে আলেম উলামা ও সাহাবায়ে কেরামদের নিয়ে এক বৈঠক করেন। এ পরামর্শ সভায় স্থির হয়, তারাবিহের নামাজ জামাত সহকারে ২০ রাকাত আদায় করতে হবে।
সমস্থ সাহাবায়ে কেরাম তারাবিহ এর নামাজ ২০রাকাত আদায় করার উপর ইজমা বা ঐক্য হয়েছে।
হজরত ওমর (রা:), হজরত উসমান(রা:) সহ সকল সাহাবীগণ বিশ রাকাতই আদায় করেছেন।কোন সাহাবী ভিন্নমত পোষণ করেননি। তাই আমাদেরকে ও তারাবিহ এর নামাজ বিশ রাকাত ই আদায় করতে হবে।

রাসুল(সা:)এরশাদ করেছেন, নিশ্চয় আল্লাহতায়ালা তোমাদের প্রতি রমজান মাসের রোজা ফরজ করেছেন,আর আমি তোমাদের জন্য তারাবিহের নামাজকে সুন্নাত করে দিয়েছি।

তারাবিহের নামাজ অত্যন্ত ফযিলতপূর্ণ এক এবাদত। বিশ্বনবী মোহাম্মদ (সা:) এরশাদ করেছেন,যে ব্যক্তি পূর্ণ ঈমান ও সওয়াব লাভের আশায় রমজান মাসে রাতে কিয়াম (নামাজ)আদায় করবে তার পূর্বেকার সকল গুনাহ মাফ করে দেওয়া হবে,(বুখারী ও মুসলিম)।

তারাবিহ নামাজের গুরুত্ব সীমাহীন। রাসুল(সা:)তারাবিহের নামাজকে অত্যাধিক গুরুত্বের সাথে আদায় করতেন।এবং সাহাবায়ে কেরামদের এব্যাপারে উৎসাহীত করতেন। সুন্নাত মনে করে তারাবিহের নামাজকে অবহেলা করা বা গুরুত্বহীন ভাবা উচিৎ নয়।
তারাবিহের নামাজের দ্বারা রমজান মাসের পূর্ণ হক আদায় হয়।পাশাপাশি তারাবিহের নামাজের বদৌলতে কোরআন তেলাওয়াত শ্রবণ হয়ে যায়।

লেখক
মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান
শিক্ষক
জামিয়া কোরআনিয়া সৈয়দা সৈয়দুন্নেছা ও কারিগরি শিক্ষালয়
কাজীপাড়া, ব্রাহ্মণবাড়িয়া।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০