শিরোনাম

মাহে রমজান

মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান | রবিবার, ২০ মে ২০১৮ | পড়া হয়েছে 194 বার

মাহে রমজান

ইসলামের আলোকে নিয়ত একটি সাতন্ত্র এবাদত। যেকোনো কাজ করার জন্য ও নিয়তের প্রয়োজন। মাহে রমজানের রোজা রাখার জন্য নিয়ত অতীব জরুরি। রোজার জন্য অন্যতম শর্ত।নিয়ত ছাড়া রোজা হবেনা।

হজরত উমর(রা:)হতে বর্ণীত, তিনি বলেন, আমি বিশ্ব নবী মোহাম্মদ (সা:)কে বলতে শুনেছি যে, নিশ্চয় সকল আমল নিয়তের উপর নির্ভরশীল। আর প্রত্যেক ব্যক্তি তা ই পাবে যার নিয়ত সে করবে।কেননা প্রত্যেক আমল করার জন্য নিয়ত অত্যন্ত জরুরি বিষয়।


রোজার নিয়ত আরবিতে করে নেওয়া ই উত্তম। যদি কেউ আরবিতে নিয়ত করতে অপারগ হয় সে এভাবে নিয়ত করলে ই হয়ে যাবে, যে আমি আগামীকাল রোজা রাখবো।

রমজান মাস এবাদত বন্দেগি ও আমল করার মাস। রাসুল(সা:)বলেছেন, রমজান মাসে চারটি কাজ অবশ্য ই করণীয়। (১)অধিক পরিমাণে কালেমায়ে শাহাদাত পাঠ করা।(২)অধিকহারে ইস্তেগফার বা ক্ষমা প্রার্থনা করা।(৩)জান্নাত লাভের প্রত্যাশায় দোয়া করা।(৪)জাহান্নাম থেকে পরিত্রাণ পেতে দোয়া করা।

রমজান মাস গুনাহ মাফ করিয়ে নেওয়ার মাস।
হাদিস শরিফে আল্লাহর রাসুল মোহাম্মদ (সা:)বলেছেন, যে ব্যক্তি রমজান মাস পেয়ে ও নিজের গুনাহ মাফ করিয়ে নিতে পারলোনা তার মতো হতভাগা এই দুনিয়াতে আর কেহ নেই।

সংযম ও সাধনার মাস রমজান। আল্লাহতায়ালার অধিকতর নৈকট্য লাভের মাস মাহে রমজান। আল্লাহ তায়ালা আমাদের সকলকে সহীহ শুদ্ধ ভাবে রমজান মাসের রোজা রাখার পাশাপাশি আল্লাহর এবাদত বন্দেগীতে লিপ্ত থেকে নিজেদের গুনাহ মাফ করিয়ে নেওয়ার তাওফিক দান করুণ, আমিন।

লেখক
মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান
শিক্ষক
জামিয়া কোরআনিয়া সৈয়দা সৈয়দুন্নেছা ও কারিগরি শিক্ষালয়
কাজীপাড়া,ব্রাহ্মণবাড়িয়া।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১