শিরোনাম

মানুষের নতুনকে দেখার আকাঙ্ক্ষা অনেক পুরনো

ডেস্ক ২৪ | শুক্রবার, ০১ জানুয়ারি ২০১৬ | পড়া হয়েছে 715 বার

মানুষের নতুনকে দেখার আকাঙ্ক্ষা অনেক পুরনো

মানুষের নতুনকে দেখার আকাঙ্ক্ষা অনেক পুরনো। আর বলা হয়ে থাকে ক্রমাগত জানার চেষ্টার ফলে সম্ভব হয়েছে নতুন নতুন আবিষ্কার। যার ফলে মানবজীবন যেমন সহজ হয়েছে তেমনিভাবে এর ব্যাপ্তি ও উন্নয়ন হয়েছে নিশ্চিত। আর এটা অস্বীকার করার কোনো উপায় নেই যে, পৃথিবীর সৌন্দর্য মানুষকে যেমন মুগ্ধ করে, তেমনি রহস্যময় কিংবা বিস্ময়কর স্থানগুলোতেও রয়েছে প্রবল আকর্ষণ।

স্বাভাবিকভাবেই তাই থ্রিহনুকাগিগুর আগ্নেয়গিরিও মানুষের কাছে তেমনই একটি বিস্ময়কর স্থান। আপনি অবাক হবেন যে, আইসল্যান্ডের এই ভূগর্ভস্থ আগ্নেয়গিরিটি কমপক্ষে ৪ হাজার বছরের পুরনো! একবার ভাবুন ৪ হাজার বছরের পুরনো আগ্নেয়গিরি মানুষকে কতোটা বিস্মিত করতে পারে! আর যখন এই আগ্নেয়গিরিটির অভ্যন্তরে উত্তপ্ত লাভা ভূমির ৩৯০ ফুট নিচ দিয়ে নদীর স্রোতের মতো প্রবাহিত হচ্ছে। স্বাভাবিক অর্থেই আপনি বিস্মিত না হয়ে পারবেন না।


এই স্থানটি অত্যন্ত বিপদজনক ও সাধারণভাবে মানুষের জন্য তাই গমণ করাও অসম্ভব। এখন আপনার মনে প্রশ্ন আসতেই পারে তাহলে কি পর্যটকদের আগ্রহ শুধু পড়া কিংবা ছবি দেখার মধ্যেই সীমাবদ্ধ! মোটেই কিন্তু তা নয়। এইরকম একটি বিস্ময়কর স্থান মানুষ দেখতে পারবে না তাই কি করে হয়! এখানে যাওয়া মানুষের জন্য অত্যন্ত কঠিন একটি কাজ। এই বিষয়টি বিবেচনা করেই একটি ক্যাবল কারের ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়েছে। তাই আপনি চাইলেই দেখে আসতে পারেন ভূগর্ভস্থ এই বিস্ময়কর স্থানটি।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০