শিরোনাম

ভিন্ন আয়োজনে যমুনা টিভির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

ষ্টাফ রিপোর্টার : | শনিবার, ০৭ এপ্রিল ২০১৮ | পড়া হয়েছে 222 বার

ভিন্ন আয়োজনে যমুনা টিভির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

ভিন্নধর্মী আয়োজনের মধ্য দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পালিত হয়েছে জনপ্রিয় বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল যমুনা টিভির চতুর্থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী। এবার নারীদের প্রাধান্য দিয়ে আয়োজন করা হয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান। গত বৃহস্পতিবার সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবে অনুষ্ঠিত প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে কেক কাটার পাশাপাশি ছিল নারীর প্রতি সহিংসতা রোধকল্পে স্কুল শিক্ষার্থীদের বিতর্ক প্রতিযোগিতা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান। প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন জেলার পুলিশ সুপার (পদোন্নতি পাওয়া অতিরিক্ত ডিআইজি) মো. মিজানুর রহমান। উদ্বোধনের পর শুরু হয় ‘নারী নির্যাতন: বিচার প্রক্রিয়ায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর ভূমিকাই প্রধান’ শীর্ষক বিতর্ক প্রতিযোগীতা। এতে অংশ নেয় গভঃ মডেল গার্লস হাই স্কুল ও সাবেরা সোবহান সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।


‘নারী নির্যাতন বিচার প্রক্রিয়ায় প্রেক্ষাপট ব্রাহ্মণবাড়িয়া’ এর প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের সাধারণ সম্পাদক এড. তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাত।

পরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবের সভাপতি খ. আ. ম রশিদুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা। এতে অংশ নেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার মেয়র নায়ার কবির, ভাষা সৈনিক মুহম্মদ মুসা, র‌্যাব-১৪ এর ভৈরব ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার মেজর শেখ নাজমুল আরেফিন পরাগ, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. ইকবাল হোসাইন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. রেজাউল কবির, সহকারী পুলিশ সুপার (ডিএসবি) সোনিয়া পারভীন, জেলা মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান ফরিদা নাজমীন, সিনিয়র সাংবাদিক মোহাম্মদ আরজু, বাংলাদেশ আইন সমিতির সভাপতি এড. কামরুজ্জামান আনসারী ও আশুগঞ্জ উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রেহেনা বেগম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান বলেন, বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ ও বিশ্লেষণমূলক টকশোর মাধ্যমে অল্প সময়ের মধ্যে যমুনা টেলিভিশন দর্শকদের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে। তবে আমাদের প্রত্যাশা থাকবে যমুনা টেলিভিশনের পর্দায় যেন সরকারের উন্নয়নমূলক সংবাদগুলো বেশি করে প্রচার করা হয়।

নারী নির্যাতন রোধে সবার সহযোগিতা কামনা করে পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান বলেন, নারী নির্যাতন রোধে আমরা উইমেনস্ সাপোর্ট সেন্টার করেছি। অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বর্তমানে নারী নির্যাতনের হার কম। তবে সবার সচেতনতা আর সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে নারী নির্যাতনের হার শূণ্যের কোঠায় নেমে আসবে। বক্তারা যমুনা টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি শফিকুল ইসলাম সহ এর সাথে যুক্ত সকল কলাকুশলীদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শুভেচ্ছা জানান। উপস্থাপনা করেন প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি আল আমিন শাহীন।

পরে বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ শেষে কেক কেটে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করা হয়।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮