শিরোনাম

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (আশুগঞ্জ-সরাইল) আসনে বিএনপির মনোনয়ন চান জাভেদ

বিশেষ প্রতিনিধি : | মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮ | পড়া হয়েছে 249 বার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (আশুগঞ্জ-সরাইল) আসনে বিএনপির মনোনয়ন চান জাভেদ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (আশুগঞ্জ-সরাইল) সংসদীয় নির্বাচনী আসনে বিএনপি থেকে মনোনয়ন ফরম তুলেছেন কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি জাভেদ হাসান স্বাধীন।

আজ ১৩ নভেম্বর মঙ্গলবার দুপুরে দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রির দ্বিতীয় দিনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে তিনি মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন।


মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের পর তিনি বলেন, দলের দুঃসময়ে ছিলাম, আছি, ভবিষ্যতেও থাকবো। দল আমাকে মনোনয়ন দিলে দেশনেত্রী খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানকে সরাইল-আশুগঞ্জ এর আসনটি উপহার দিব ইনশাআল্লাহ।

সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রদল এ নেতা প্রস্তাবিত যুবদলের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক পদপ্রার্থী। জাভেদ হাসান স্বাধীন ছাত্র জীবনে ঢাকা কলেজে পড়ার সময়ে ছাত্রদলের কর্মী হিসেবে যুক্ত হন রাজনীতির সাথে। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময়ে ছাত্র রাজনীতির সাথে জড়িয়ে পরেন। তিনি জিয়াউর রহমান হলের সাংগঠনিক দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে নিয়োজিত ছিলেন।

তিনি তৎকালীন ছাত্রদলের সোহেল-পিন্টুর কেন্দ্রীয় কমিটিতে সদস্য হিসেবে কেন্দ্রীয় ছাত্র রাজনীতির যুক্ত হন। এরপর একে একে পিন্টু-লাল্টু, লাল্টু-হেলাল, হেলাল-বাবু, টুকু-আলীম ও জুয়েল-হাবিবের কেন্দ্রীয় কমিটিতেও গুরুত্বপূর্ণ পদে ছিলেন। ছাত্র রাজনীতি করতে গিয়ে তিনি বিভিন্ন সময়ে নানান নির্যাতনের শিকার হয়ে কারাভোগও করেন।

প্রসঙ্গত, ২০০১ সালের আগে আশুগঞ্জ-সরাইল আসনের চারবারের নির্বাচিত সাংসদ ছিলেন বিএনপির উকিল আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়া। ২০০১ সালের নির্বাচনে বিএনপির নেতৃত্বে চারদলীয় জোট গঠন করা হলে ইসলামী ঐক্যজোটের জোটের সাবেক চেয়ারম্যান মুফতি ফজলুল হক আমিনী আশুগঞ্জ-সরাইল আসনের সাংসদ নির্বাচিত হন। তবে ২০০৮ সালের নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থী জাপা নেতা অ্যাড. জিয়াউল হক মৃধার কাছে মুফতি ফজলুল হক আমিনী পরাজিত হন। পরবর্তীতে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারীর নির্বাচনে বিএনপি অংশ গ্রহণ না করায় ফের মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে অ্যাড. জিয়াউল হক মৃধা এম.পি নির্বাচিত হন।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০