শিরোনাম

সাঈদীর মুক্তি চেয়ে স্ট্যাটাস দেয়ায়

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় যুবকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

স্টাফ রিপোর্টার | বুধবার, ০৬ মে ২০২০ | পড়া হয়েছে 320 বার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় যুবকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত ইসলামীর নেতা মাওলানা দেলোয়ার হোসাইন সাঈদীর মুক্তি চেয়ে স্ট্যাটাস দেয়ায় এক যুবকের বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।

গত সোমবার রাত সাড়ে ১১টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় মামলাটি দায়ের করেন। মঙ্গলবার বিকেলে মামলাটি নথিভুক্ত হয়।


মামলায় জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন শোভন, সিনিয়র সহ-সভাপতি সুজন দত্ত, সহ-সভাপতি শামীম হোসেন, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মমিন মিয়া, নাঈম বিল¬াহ, কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের মাহমুদ শ্রাবণ ও পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লিমন আল স্বাধীনকে স্বাক্ষী করা হয়।

মামলার এজাহারে বলা হয়, “আওয়ামী ছাত্র পরিষদ” সংগঠনের নাম ব্যবহার করে “সফ ংযধশ লধষধষ ঐধুধৎর “ফেসবুক আইডি থেকে স্ট্যাটাস দেন অভিযুক্ত ওই যুবক।

মামলায় সদর উপজেলার সুহিলপুর ইউনিয়নের ঘাটুরা গ্রামের মিজান মিয়া হাজারীর ছেলে শেখ মোঃ জালাল হাজারী রনি-(২৬) কে আসামি করা হয়। তবে জালাল হাজারী রনি আওয়ামী ছাত্র পরিষদের সাথে জড়িত কিনা সেটি নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, জালাল হাজারী রনি গত ২ মে বিকেলে তার ফেসবুক আইডি থেকে নিজেকে বাংলাদেশ আওয়ামী ছাত্র পরিষদ,ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার শাখার সাধারণ সম্পাদক দাবি করে দন্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামী নেতা দেলোয়ার হোসাইন সাঈদীর মুক্তি চেয়ে স্ট্যাটাস দেন। আওয়ামী ছাত্র পরিষদের নামে আইডি থেকে জামায়াত নেতা সাঈদীর মুক্তি চেয়ে শেখ মোঃ জালাল হাজারী রনির দেয়া স্ট্যাটাসটি ধর্মীয় উস্কানী হিসেবে পরিলক্ষিত হচ্ছে বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়।

এ ব্যাপারে মামলার বাদি ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল বলেন, রনি দেশের সংবিধান ও বিচারালয়কে বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করেছেন। তার স্ট্যাটাসটি সংবিধান ও বিচারিক কার্যক্রম তথা আদালতের জন্য অসম্মানজনক। আমি মনে করি সে দেশে বিশৃঙ্খলা তৈরির ষড়যন্ত্রে লিপ্ত।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ সেলিম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাটি নথিভুক্ত করা হয়েছে। তদন্ত চলছে। শীঘ্রই আসামীকে আইনের আওতায় আনা হবে।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০