শিরোনাম

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভার্চুয়াল আদালত অনুষ্ঠিত হয়নি

স্টাফ রিপোর্টার | সোমবার, ১১ মে ২০২০ | পড়া হয়েছে 143 বার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভার্চুয়াল আদালত অনুষ্ঠিত হয়নি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জামিনের আবেদন শুনানীর বিষয়ে ভার্চুয়াল আদালত অনুষ্ঠিত হয়নি। বিষয়টির সাথে পরিচিত নয় বলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আইনজীবী সমিতির সদস্যরা এই আদালতে অংশ নেননি।

সোমবার বেলা তিনটা থেকে সোয়া চারটা পর্যন্ত বিষয়টি নিয়ে জেলা আইনজীবী সমিতি ভবনের দ্বিতীয় তলায় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি শফিউল আলম।


সমিতির সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান মামুনের পরিচালনা সভায় আইনজীবীগন বক্তব্য রাখেন।

সভায় আইনজীবীরা বলেন, আমরা এটি নিয়ে অভ্যস্ত না। ভার্চুয়াল আদালতে কোনো মামলা শুনানি হলে যে কোনো বিদ্যুৎ বিভ্রাটের কারণ বা নেটের দুর্বলতার কারণে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যেতে পারে। জামিনের শুনানী ভালোভাবে ভার্চুয়াল আদালতে করাও সম্ভব না। তাই সভায় সর্বসম্মতিক্রমে আইনজীবীরা ভার্চুয়াল আদালতে অংশগ্রহন প্রসঙ্গে অনীহা প্রকাশ করেন।

আইনজীবী সমিতি সূত্রে জানা গেছে, ১০ মে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল আলী আকবর স্বাক্ষতির শুধুমাত্র জামিন সংক্রান্ত বিষয়সমূহ তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে ভার্চুয়াল শুনানীর মাধ্যমে নিষ্পত্তিকরণ বিষয়ে বিষষে প্র্যাক্টিস নির্দেশনা সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি প্রদান করেন। গত রোববার রাতে বিচারকরা ভার্চুয়াল আদালত প্রসঙ্গে আইনজীবীর অবগত করে বলেন, যে সোমবার থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভার্চুয়াল আদালত শুরু হবে।

সোমবার সকালে কয়েকজন আইনজীবী বিচারকদের সাথে যোগাযোগ করে প্রশিক্ষণ নেন এবং সমিতির পক্ষ থেকে দুটি মামলা দাখিল করা হয়।

পরে সভা শেষে বৈঠকে অংশ নেয়া আইনজীবী আব্দুর রহিম গোলাপ এবং অ্যাডভোকেট নিজামউদ্দিন খান বলেন, সরকারের সিদ্ধান্ত যুগোপযোগী এবং ভাল। কিন্তু নতুন বিষয়ে তথ্য প্রযুক্তির সাথে অনেকেই অভ্যস্থ নয়। পাশপাশি অনেকের স্মার্টফোন না থাকা, ইন্টারনেট সর্ম্পকে স্পষ্ট ধারনার অভাবসহ জামিন শুনানীর কপি স্কেন করা সহ নানা বিষয়ে জটিলতা সৃষ্টির আশংকায় আপাতত সাধারন আইনজীবীরা ভার্চুয়াল শুনানীতে অংশ নিবেন না বলে আইনজীবী সমিতির নেতৃবৃন্দকে জানিয়েছেন। আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট কামরুজ্জামান মামুন জানান, প্রধান বিচারপতি ও হাইকোর্ট বিভাগের নির্দেশক্রমে আদালত থেকে আমাদেরকে ভার্চুয়াল শুনানীর মাধ্যমে আদালত পরিচালনার সিদ্ধান্ত গ্রহন করার কথা জানানো হয়েছে। সোমবার সকালে কয়েকজন আইনজীবী বিচারকদের সাথে যোগাযোগ করে প্রশিক্ষণ নেন এবং সমিতির পক্ষ থেকে দুটি মামলা দাখিল করা হয়। কিন্তু ভার্চুয়াল কোর্ট পরিচালনা করার জন্য আমাদের আইনজীবীদের আমন্ত্রন জানিয়েছি ও বুঝানোর চেষ্টা করেছি। কিন্তু আমাদের আইনজীবীগন এটাকে মানিয়ে নিতে পারছেন না। তারা এই পদ্ধতি বুঝতে পারছে না এবং তাদের কাছে জটিল মনে হয়। নেট সমস্যা সহ অনেক কারণেই আইনজীবীরা এই পদ্ধতিতে যাবেনা না। সেজন্য যদি সপ্তাহে দুইদিন নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে সীমিত আকারে সরাসরিভাবে কোর্ট পরিচালনা করা হয় তাহলে দেশের মানুষের উপকার হবে। তাই আপাতত আমরা সাধারণ আইনজীবীদের মতামতের সাথে আছি।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১