শিরোনাম

ইউএনওর হস্তক্ষেপে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বাল্য বিয়ে বন্ধ

স্টাফ রিপোর্টার | শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০১৯ | পড়া হয়েছে 219 বার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বাল্য বিয়ে বন্ধ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী তামান্না আক্তার-(১৫)। শুক্রবার (২৬ জুলাই ২০১৯) দুপুরে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট পঙ্কজ বড়–য়ার নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত পৌর এলাকার ভাদুঘর গ্রামে কনের বাড়িতে গিয়ে বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দেন এবং ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পাওয়া তামান্না আক্তার পৌর এলাকার ভাদুঘর গ্রামের এলেমপাড়ার মোঃ সাচ্চু মিয়ার মেয়ে এবং স্থানীয় মাহবুবুল হুদা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী।


ভ্রাম্যমান আদালত সূত্রে জানা গেছে, অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী তামান্না আক্তারের সাথে পৌর এলাকার কাউতলী গ্রামের এক যুবকের শুক্রবার বিকেলে বিয়ে হওয়ার কথা ছিলো। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিষয়টি জানতে পেরে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট পঙ্কজ বড়–য়ার নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত বিয়ে বাড়িতে বর যাওয়ার আগেই উপস্থিত হয়ে বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দেন এবং অপ্রাপ্ত বয়সে মেয়ের বিয়ের আয়োজন করায় কনের পিতা সাচ্চু মিয়াকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা এবং মেয়ে প্রাপ্ত বয়ষ্ক না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেন না মর্মে তাদের কাছ থেকে মুচলেকা আদায় করেন।

এ ব্যাপারে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার পঙ্কজ বড়–য়ার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বাল্য বিয়ের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১