শিরোনাম

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পরিবহন শ্রমিকদের ৪৮ ঘন্টার কর্মবিরতি শুরু : যাত্রীরা বিপাকে

স্টাফ রিপোর্টার : | রবিবার, ২৮ অক্টোবর ২০১৮ | পড়া হয়েছে 104 বার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পরিবহন শ্রমিকদের ৪৮ ঘন্টার কর্মবিরতি শুরু : যাত্রীরা বিপাকে

জাতীয় সংসদে পাস হওয়া “সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ এর কয়েকটি ধারা সংশোধন সহ ৮ দফা দাবিতে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকা ৪৮ ঘণ্টার “কর্মবিরতি” ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পালিত হচ্ছে।

৪৮ ঘন্টা কর্মবিরতির প্রথমদিনে আজ ২৮ অক্টোবর রবিবার সকাল ৬টা থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কর্মবিরতি শুরু করে সড়ক পরিবহন শ্রমিকরা। এতে করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পৌর এলাকার ভাদুঘর বাস আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল থেকে ঢাকা এবং চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে দূরপাল্লার কোন যাত্রীবাহী বাস ছেড়ে যায়নি। এছাড়া পৌর এলাকার মেড্ডা বাসষ্ট্যান্ড থেকে আভ্যন্তরীন রুটেও লোকাল বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। বাসের সাথে রবিবার ট্রাক চলাচলও করেনি।


ফলে কমিল্লা-সিলেট মহাসড়ক ও ঢাকা-সিলটে মহাসড়কে সিএনজি অটোরিক্সা ও ইজিবাইক ছাড়া অন্য কোনো যানবাহন চলাচল করতে দেখা যায়নি। ফলে যাত্রীরা পড়েছে বিপাকে। গণ পরিবহনের অভাবে যাত্রীরা চড়া দামে অটোরিকসা, ইজিবাইকসহ ছোটখাটো যানবাহনে চলাচল করতে বাধ্য হচ্ছে।

এদিকে কর্মবিরতির প্রথমদিনে রবিবার ভোর থেকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বিশ্বরোড মোড় সহ বিভিন্ন পয়েন্টে বিভিন্ন পরিবহনের শ্রমিকরা অবস্থান নেয়।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন ও জেলা পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আনিছুর রহমান চৌধুরী জানান, দুর্ঘটনা ঘটলে জামিন অযোগ্য ধারা, ৫ লাখ টাকা জরিমানা সহ ৩০২ ধারায় শ্রমিকদের মৃত্যুদন্ডের বিধান রেখে জাতীয় সংসদে “সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ পাস হয়েছে। তিনি বলেন, এমনিতেই আমরা প্রতিনিয়ত মৃত্যুর ঝুঁকিতে থাকি। এ অবস্থায় আমরা ফাঁসির দড়ি গলায় নিয়ে গাড়ী চালাতে চাইনা। সরকার আগে মহাসড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনুক। তিনি বলেন, তাদের দাবি মানা না হলে ৭২ঘন্টা এমনকি অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটের ডাক দেয়া হবে। এদিকে ৪৮ ঘন্টার কর্মবিরতির ফলে যাত্রীরা পড়েছে সীমাহীন দুর্ভোগে। গণ পরিবহনের অভাবে যাত্রীরা চড়া দামে অটোরিকসা, ইজিবাইকসহ ছোটখাটো যানবাহনে চলাচল করতে বাধ্য হচ্ছেন।

ঢাকাগামী যাত্রী আমানুর রহমান, রাকেশ দাস, রোজিনা রহমান জানান, এভাবে পরিবহন ধর্মঘট ডাকায় আমরা এখন বিপাকে পরেছি। ট্রেন ছাড়া কোনো উপায় নেই। আমরা এর প্রতিকার চাই।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ হানিফ কর্মবিরতিকে সমর্থন করে বলেন, শ্রমিক গাড়ি না চালালেতো আমরা তাদের উপর জোর করতে পারিনা। তিনি বলেন, আশা করি সরকার আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমস্যাটির দ্রুত সমাধান করবে।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১