শিরোনাম

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ডাকাতি শেষে গৃহবধূকে ধর্ষণ ॥ চিনে ফেলায় হত্যার চেষ্টা

প্রতিনিধি | বুধবার, ০৯ মার্চ ২০১৬ | পড়া হয়েছে 347 বার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ডাকাতি শেষে গৃহবধূকে ধর্ষণ ॥ চিনে ফেলায় হত্যার চেষ্টা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ডাকাতি শেষে তিন সন্তানের জননী এক গৃহবধূকে-(২৫) ধর্ষণ করেছে ডাকাতরা। এসময় এলাকার চিহিৃত এক ডাকাতকে গৃহবধূ চিনে ফেলায় তার গোপনাঙ্গে ছুরিকাঘাত করে ওই গৃহবধূকে হত্যার চেষ্টা করা হয়।
ঘটনাটি ঘটেছে আজ বুধবার ভোররাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার নাটাই (উত্তর) ইউনিয়নের থলিয়ারা গ্রামে। আশংকাজনক অবস্থায় আজ সকালে গৃহবধূকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।
এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, ভোররাতে থলিয়ারা গ্রামের আবদুল মালেক মিয়ার বাড়ির দালান ঘরের কলাপসিবল গেইট ও কাঠের দরজা ভেঙ্গে ভেতরে ঢুকে দুই ডাকাত। তারা ঘরে ঢুকেই ঘুমন্ত অবস্থায় ওই গৃহবধূর দুই হাত, পা ও মুখ বেঁধে ফেলে। পরে তাকে ধর্ষণ করা হয়। এসময় গৃহবধূ ডাকাতদের মধ্যে কাদির নামে একজনকে চিনে ফেলায় তার গোপনাঙ্গে ছুরিকাঘাত করে তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়।
ডাকাতরা ঘরের আলমিরা থেকে নগদ তিন লাখ টাকা, চার ভরি স্বর্ণালংকার ও দুটি মোবাইল লুটে নেয়। পরে ওই গৃহবধূর চিৎকারে বাড়ির লোকজন ও প্রতিবেশীরা ছুটে এসে রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে প্রথমে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।
ধর্ষনের শিকার ওই গৃহবধূর শ্বাশুড়ি বলেন, কাদের এলাকার চিহ্নিত ডাকাত। তার বাড়ি সরাইল উপজেলার কালিকচ্ছ গ্রামে। থলিয়ারা গ্রামে এক প্রভাবশালী আত্মীয়ের ছত্রছায়ায় সে এলাকায় ডাকাতি করে।
এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মঈনুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামীদেরকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০