শিরোনাম

তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জেলা ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত-৫, বাড়ি-ঘর ভাংচুর

স্টাফ রিপোর্টার : | শুক্রবার, ২৫ মে ২০১৮ | পড়া হয়েছে 2291 বার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জেলা ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত-৫, বাড়ি-ঘর ভাংচুর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে জেলা ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ৫ জন আহত হয়েছে। এ সময় প্রতিপক্ষের একটি বাড়ি-ভাংচুর করা হয়। পরে সংঘর্ষ শহরের কয়েকটি মহল্লায় ছড়িয়ে পড়ে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২৪.০৫.২০১৮) দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। আহত দু’জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। বাকীরা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নেয়। এ ঘটনায় সদর থানায় পৃথক দুটি অভিযোগ দায়ের করা হয়।


খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গতকাল বৃহস্পতিবার শহরের লোকনাথ উদ্যান সংলগ্ন পৌর কমিউনিটি সেন্টারে জেলা ছাত্রলীগের ইফতার মাহফিলে পানি দেওয়াকে কেন্দ্র করে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন শোভনের অনুসারী শহর ছাত্রলীগের সভাপতি এম.এইচ হিমেলের সাথে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেলের অনুসারী ও বিজয়নগর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক নেতা তফসিরুল ইসলামের বাদানুবাদ হয়।

ইফতার শেষে তফসিরকে মারধর করে হিমেলের অনুসারীরা। আহত অবস্থায় তফসিরকে জেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে হাসপাতাল কমপ্লেক্সেও পুনরায় দু’নেতার অনুসারীরা সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনার পর শহর জুড়ে আতংক নেমে আসে। শহরের গুরুত্বপূর্ন স্থানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

এদিকে রাত ১০টার দিকে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেলের অনুসারীরা শহরের দক্ষিণ মৌড়াইল ও কলেজপাড়ার শোভনের অনুসারীদের উপর হামলা করে। এ সময় দক্ষিণ মৌড়াইলে অবস্থিত জেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক জাহাঙ্গীর হোসাইনের বাড়িতে হামলা করে রুবেল সমর্থিতরা। কলেজপাড়ায় হামলায় ৪জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে জয় হোসেন এবং মহসিন মোল্লাকে ছুরিকাঘাত করা হয়। তাদের দু’জনকে প্রথমে জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়।

জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহদাৎ হোসেন শোভন জানান, ইফতার মাহফিলে তুচ্ছ বিষয়ে বিচ্ছিন্ন একটি ঘটনা ঘটে। উভয় পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা চলছে।

এ ব্যাপারে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ রবিউল হোসেন রুবেলের সাথে কথা বলার জন্য তার মোবাইল ফোনে কয়েক দফা চেষ্টা করা হলেও ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

জেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, তাঁর বাড়িতে হামলা করেছে রুবেল সমর্থিতরা। এছাড়াও রুবেলের সমর্থকরা কলেজপাড়ায় শোভনের সমর্থকদের মারধোর করে।

এ ব্যাপারে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ নবীর হোসেন বলেন, সংঘর্ষের ঘটনা এখন নিয়ন্ত্রনে আছে। শহরের গুরুত্বপূর্ন স্থানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। তিনি বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় দু’গ্রুপের পক্ষ থেকে দু’টি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১