শিরোনাম

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কলেজ ছাত্রীর সাথে শারীরিক সম্পর্ক, অতপর

শফিকুল ইসলাম সোহেল | শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯ | পড়া হয়েছে 1002 বার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কলেজ ছাত্রীর সাথে শারীরিক সম্পর্ক, অতপর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক কলেজ ছাত্রীর সাথে শারীরিক সম্পর্ক করে পরে প্রতারণার অভিযোগ উঠে মোঃ সিরাজুল খান-(২৭) নামে এক প্রেমিকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার রাতে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন ওই কলেজছাত্রী। ভুক্তভোগী ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের একটি কলেজের ছাত্রী।

কলেজ ছাত্রীর পরিবার ও থানায় দায়েরকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ফেসবুকের মাধ্যমে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার শেরপুর গ্রামের আবুল কালাম খানের ছেলে সিরাজুল খানের সাথে পরিচয় হয় পৌর এলাকার বাগানবাড়ির ওই কলেজ ছাত্রীর। পরিচয়ের সূত্র ধরে দুজনের মধ্যে বন্ধুত্বের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এরপর বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সিরাজুল ওই ছাত্রীকে নিয়ে বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়িয়েছেন এবং তার সাথে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তুলেন।


এক পর্যায়ে ওই কলেজছাত্রী সিরাজুলকে বিয়ের কথা বললে সিরাজুল তার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। উপায়ন্তর না দেখে কলেজ ছাত্রী সিরাজুলের বাড়িতে গিয়ে তার বাবা-মাকে বিষয়টি জানান। পরবর্তীতে সিরাজুলের পরিবার কলেজ ছাত্রীর মাসহ অভিভাবকদের ডেকে নিয়ে বিয়ের জন্য সম্মত হন এবং সিরাজুলও বিয়ে করতে রাজি হন।

অভিযোগে আরো বলা হয়, বিয়ের তারিখ নির্ধারণ করার পর এক পর্যায়ে সিরাজুল ও তার পরিবারের লোকজন বিয়ে হবে না বলে জানিয়ে দেন। এ ঘটনায় ওই কলেজ ছাত্রী শারীরিক ও মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েন। পরবর্তীতে বিষয়টি নিয়ে কয়েকদফা শালিস-বৈঠক হলেও কোনো সমাধান হয়নি।

সর্বশেষ গত ৯ জুলাই বিকেলে ওই কিশোরী সিরাজুলের বাড়িতে গিয়ে আবার বিয়ের কথা বললে সিরাজুল সব সম্পর্ক অস্বীকার করেন এবং তাকে ও তার পরিবারের লোকজনদের গালিগালাজ করেন। একই সাথে ওই কলেজছাত্রীর আপত্তিকর ছবি-ভিডিও অনলাইনে ছড়িয়ে দিয়ে সম্মানহানিরও হুমকি দেন। এ ঘটনায় গত ১৮ জুলাই ওই কলেজ ছাত্রী সদর মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

এ ব্যাপারে ওই কলেজ ছাত্রী অভিযোগ করে বলেন, ‘ওর (সিরাজুল) কারণে আমার সব শেষ হয়ে গেছে। এলাকাবাসী সবাই জানে আমি সিরাজের বউ। এখন ওর সাথে যদি আমার বিয়ে না হয় আমি আর মুখ দেখাতে পারব না। আমার মরণ ছাড়া আর কোনো উপায় থাকবেনা।

এ ব্যাপারে কলেজ ছাত্রীর মা অভিযোগ করে বলেন, সিরাজুল আমার মেয়েকে বিভিন্ন স্থানে ঘুরতে নিয়ে গিয়ে সর্বনাশ করে দিয়েছে। এখন তাকে বিয়ে করতে চায়না, উল্টো সিরাজুলের পরিবার আমাদেরকে বিভিন্নভাবে হুমকি-ধামকি দিচ্ছে। আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

তবে অভিযোগের ব্যাপারে বক্তব্য জানতে সিরাজুল খানের মুঠোফোনে ফোন করলে সেটি বন্ধ পাওয়া গেছে।
এ ব্যাপারে সিরাজুলের বাবা আবুল কালাম খানকে ফোন করলে তিনি বলেন, আমার ছেলের সাথে ওই মেয়ের পরিচয় ছিলো কিন্তু অন্য কোন সম্পর্ক নেই। তিনি বলেন, সালিশে ওই মেয়ে আমার ছেলের সাথে তার সম্পর্ক আছে বলে দাবি করলেও আসলে আমার ছেলের সাথে তার কোন সম্পর্ক নেই। মেয়ে চাইলেই কি আমার ছেলের সাথে তার বিয়ে দিতে হবে?
তিনি বলেন, আমার ছেলের ওই মেয়ের সাথে পরিচয় ছিলো। এর বেশি কিছু নয়।

এ ব্যাপারে পৌর সভার ৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলার মোঃ খবির উদ্দিন বলেন, এ ঘটনায় চার বার সালিশ বৈঠক হয়েছে। দুই পরিবারের অনুরোধে আমি শেষ শালিস বৈঠকে উপস্থিত ছিলাম। ওই বৈঠকে কলেজ ছাত্রী জানায়, সিরাজুল তার সব কিছু শেষ করে দিয়েছে। এখন তাকে বিয়ে না করলে সে শেষ হয়ে যাবে। ওই কলেজ ছাত্রী সিরাজুলকে বিয়ে করতে চায়। ওই বৈঠকে মেয়েটি শারিরীক ও মানুষিকভাবে খুবই অসুস্থ্য হয়ে যাওয়ায় আমরা তার পরিবারকে মেয়ের চিকৎসা করানোর কথা বলি। বিষয়টি নিয়ে প্রয়োজনে আবার বসার আশ্বাস দেই।

এ ব্যাপারে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বলেন, মেয়ের পরিবার আমাদের কাছে নিরাপত্তা চেয়েছে আমরা মেয়ের পরিবারটির উপর নজর রাখছি। হুমকিদাতা পরিবারের প্রতিও খেয়াল রাখা হচ্ছে। তিনি বলেন, কলেজ ছাত্রীর অভিযোগ তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১