শিরোনাম

আইন-শৃংখলা কমিটির মাসিক সভায় র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একটি চক্র আছে যারা স্বাধীন বাংলাদেশকে মনে প্রানে মেনে নিতে পারেনি

স্টাফ রিপোর্টার | বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১ | পড়া হয়েছে 145 বার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একটি চক্র আছে যারা স্বাধীন বাংলাদেশকে মনে প্রানে মেনে নিতে পারেনি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার গণমানুষের নেতা, অভাবনীয় উন্নয়নের রূপকার, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি বলেছেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সার্বিক আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি ভালো, তবে আরো উন্নতি করতে হবে।

তিনি বুধবার ২৭শে অক্টোবর, ২০২১ ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার আইন-শৃংখলা কমিটির মাসিক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।


বেলা ১১টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ইয়ামিন হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি আরো বলেন, ব্যক্তিগতভাবে কারো সাথে আমার বিরোধ নেই। তিনি বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একটি চক্র আছে যারা স্বাধীন বাংলাদেশকে মনে প্রানে মেনে নিতে পারেনি। তারা বাংলাদেশে বিশ্বাস করেনা। তারা পাকিস্তানের ভাবাদর্শে বিশ্বাস করে। তাদের প্রতিষ্ঠানে জাতীয় সঙ্গীত গায়না, জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়না। শহীদ দিবস, মহান স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবস, পহেলা বৈশাখ পালন করেন না। জাতীয় দিবসগুলো তারা পালন করেন না। তাদের সম্পর্কে সকলকে সজাগ থাকতে হবে।

তিনি বলেন, যারা ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশন ভাংচুর ও অগ্নি সংযোগ করেছে, যারা বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ভাংচুর করেছে, যারা আলাউদ্দিন সঙ্গীতাঙ্গন, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকের বাড়ি, ছাত্রলীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকের বাড়ি, এসিল্যান্ড অফিস পুড়িয়ে দিয়েছে, যারা শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ভাষা চত্বরে অবস্থিত জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের অফিস পুড়িয়ে দেয়াসহ অন্যান্য সাংস্কৃতিক অফিসগুলো ভাংচুর ও অগ্নি সংযোগ করেছে তারা এসব ঘটনার জন্য এখন পর্যন্ত অনুতপ্ত হননি। তারা এসব ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেননি। এখন পর্যন্ত এসব ঘটনার নিন্দা করে পত্রিকায় বিবৃতি দেয়নি। তাদের সম্পর্কে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।

তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সুষ্ঠ, সুন্দর ও আনন্দমুখর পরিবেশে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হওয়ায় সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন জেলায় বিভিন্ন উপজেলায় একটি গোষ্ঠী হিন্দুদের মন্দিরে, বাড়ি-ঘরে হামলা করে দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার চেষ্টা করেছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এ ধরনের কোন ঘটনা না ঘটনায় তিনি সংশ্লিষ্টদেরকে ধন্যবাদ জানান।

তিনি বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের কোর্ট রোডে একটি বহুতল বিশিষ্ট সুপার মার্কেট নির্মান কাজ চলছে। এই কাজের জন্য কোর্ট রোডে যাতে কোন ধরনের যানজটের সৃষ্টি হয় সেজন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে খেয়াল রাখতে হবে।

তিনি বলেন, সামনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হবে। ওই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যাতে কোন ধরনের সংঘর্ষ, ঝগড়া-ফ্যাসাদ না হয় সেদিকে সকলকে খেয়াল রাখার আহবান জানান।

সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফিরোজুর রহমান ওলিও, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ এমরানুল ইসলাম, পৌরসভার প্যানেল মেয়র মিজানুর রহমান আনসারী, ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুল্লাহ বাহার, অ্যাডভোকেট আবদুল হাই, আজাদ হোসেন হাজারী আঙ্গুর, এম.আলম মোবাশ্বের, আল-আমিনুল হক পাভেল, শাহাদাত হোসেন প্রমুখ।

সভায় উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট লোকমান হোসেন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিসেস শামীমা মুজিব, উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের প্রধানগন, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানগন ও আইন-শৃংখলা কমিটির সদস্যগন উপস্থিত ছিলেন। পরে তিনি উপজেলা পরিষদের মাসিক সাধারণ সভায় যোগদান করেন।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০