শিরোনাম

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যকে গলা কেটে হত্যা

প্রতিনিধি | বুধবার, ২৭ এপ্রিল ২০১৬ | পড়া হয়েছে 241 বার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যকে গলা কেটে হত্যা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অবসরপ্রাপ্ত এক সেনা সদস্যকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত সোমবার রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার পশ্চিম মেড্ডা পীরবাড়ির মিন্দালীপাড়ায়। নিহতের নাম বাহার সরকার-(৩৫)। তিনি নবীনগর উপজেলার বীরগাঁও ইউনিয়নের বীরগাঁও  গ্রামের সাবেক মেম্বার নাসির সরকারের ছেলে।
এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ মামুন-(৩০) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে। পুলিশ জানায়, টাকা পয়সার লেনদেনকে কেন্দ্র করে অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যকে খুন করা হয়েছে। তবে নিহতের পরিবারের দাবি নির্বাচনী বিরোধের জের ধরে তাকে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, নবীনগর উপজেলার বীরগাঁও গ্রামের নাসির সরকারের ছেলে  অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য বাহার সরকার ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার ফুলবাড়িয়া মহল্লায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন। টাকা পয়সার লেনদেনকে কেন্দ্র করে বীরগাঁও গ্রামের মোঃ সাফি মিয়ার ছেলে মামুনের সাথে তার বিরোধ চলে আসছিল। এই বিরোধের জের ধরে গত সোমবার রাত ১০ টায় মামুন  বাহার সরকারকে ডেকে পীরবাড়ির মিন্দালীপাড়ায় নিয়ে যায়। পরে সেখানে তাকে উপর্যপুরি ছুরিকাঘাত ও গলাকেটে হত্যা শেষে পালিয়ে যাওয়ায় সময় এলাকাবাসী মামুনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে জেলা সদর হাসপাতালে নিহতের ময়নাতদন্ত স¤পন্ন হয়।
এ ঘটনায় গতকাল মঙ্গলবার সকালে নিহতের স্ত্রী আফরোজা বেগম বাদি হয়ে ১০জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার বাদি নিহতের স্ত্রী আফরোজা বেগম দাবি করেন বীরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনী বিরোধকে কেন্দ্র করে তার স্বামীকে হত্যা করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মঈনুর রহমান বলেন, টাকা পয়সার লেনদেনকে কেন্দ্র করে বাহার সরকারকে খুন করা হয়েছে। তিনি বলেন, আমরা হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার দায়ে মামুন নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছি। গ্রেপ্তারকৃত মামুন হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে গ্রেপ্তারকৃত মামুনকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০