শিরোনাম

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভা নির্বাচনে শিক্ষাগত যোগ্যতা

প্রতিনিধি | শনিবার, ১২ মার্চ ২০১৬ | পড়া হয়েছে 253 বার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভা নির্বাচনে শিক্ষাগত যোগ্যতা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভা নির্বাচনে শিক্ষাগত যোগ্যতা ও মামলার দিক দিয়ে বিএনপির মেয়র প্রার্থী হাফিজুর রহমান মোল্লা এগিয়ে রয়েছেন। বার্ষিক আয় ও সম্পদে এগিয়ে রয়েছেন আওয়ামী লীগের নায়ার কবির। রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে প্রার্থীদের জমা দেওয়া হলফনামা ঘেঁটে এ তথ্য পাওয়া গেছে।
জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্র জানায়, এ পৌরসভায় মেয়র পদে ওই দুজন ছাড়াও ইসলামী ঐক্যজোটের ইউসুফ ভূঁইয়া ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম ভূঁইয়া প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ২০ মার্চ এখানে ভোট হবে।
শিক্ষাগত যোগ্যতা: হাফিজুর রহমান রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর পাস। নায়ার কবির উচ্চমাধ্যমিক পাস। ইউসুফ ভূঁইয়া স্নাতকোত্তর পাস। সিরাজুল ইসলাম ভূঁইয়া স্বশিক্ষিত। তাঁর মৌসুমি ব্যবসা রয়েছে।
মামলা: হাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে ২৭টি ফৌজদারি মামলা রয়েছে। এর মধ্যে জেলা ও দায়রা জজ এবং বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-১ আদালতে ১৫টি মামলা বিচারাধীন ও জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিমের আদালতে ১২টি মামলা চলমান রয়েছে। অন্য প্রার্থীদের বিরুদ্ধে কোনো মামলা নেই।
বার্ষিক আয়: কৃষি খাত থেকে হাফিজুর রহমানের বার্ষিক আয় ১২ হাজার এবং বাড়ি ও দোকানভাড়া থেকে তিনি ৯৭ হাজার ৯০০ টাকা আয় করেন। নায়ার কবিরের বাড়ি ও দোকানভাড়া থেকে বার্ষিক আয় ৬ লাখ ৪৫ হাজার ৯০২ টাকা। অন্যান্য মূলধনি লাভ ও এর অংশ থেকে তাঁর বার্ষিক আয় ৪ লাখ ৫২ হাজার ৩১২ টাকা। ইউসুফ ভূঁইয়ার ব্যবসা থেকে বার্ষিক আয় ৪ লাখ ৩৬ হাজার ১৪০ টাকা। সিরাজুল ইসলাম ভূঁইয়ার বাড়িভাড়া থেকে বার্ষিক আয় ১ লাখ ৮৫ হাজার টাকা ও অন্যান্য (মূলধনি লাভ) খাত থেকে বার্ষিক আয় ৯৫ হাজার টাকা।
সম্পদ: হাফিজুর রহমান মোল্লার কাছে বর্তমানে নগদ টাকা নেই। ব্যাংকে আছে ২৮ লাখ টাকা। তাঁর ৩০ হাজার টাকার স্বর্ণালংকার রয়েছে। তাঁর কৃষিজমির পরিমাণ ১০০ শতক, অকৃষিজমির পরিমাণ ৩১ শতক। তাঁর আধা পাকা একতলা দালান ও টিনশেড ঘর রয়েছে।
নায়ার কবিরের নগদ ২ লাখ ৪৩ হাজার টাকা ব্যবসায়িক পুঁজি রয়েছে। তাঁর হাতে নগদ ও ব্যাংকে ২৮ লাখ ৯৯ হাজার ৮৯৪ টাকা আছে। তাঁর ২ কোটি ১৫ লাখ ১৬ হাজার ৩১৩ টাকার অকৃষিজমি রয়েছে। ঢাকায় ধানমন্ডিতে একটি ফ্ল্যাট, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ১৪ শতক ভূমি ও পুকুর এবং সাড়ে ৭ শতক জায়গার ওপর বাড়ি রয়েছে। জেলা শহরে দোকানের জামানত বাবদ তাঁর ২ কোটি ৭০ হাজার ৯০০ টাকা রয়েছে। তাঁর ১২ লাখ ৭ হাজার টাকার স্বর্ণালংকার রয়েছে।
ইউসুফ ভূঁইয়ার ব্যবসায় নগদ ১১ লাখ ১৫ হাজার ৭০০ টাকা পুঁজি এবং ১ লাখ ২০ হাজার টাকার স্বর্ণালংকার রয়েছে। তাঁর ছয় লাখ টাকার অকৃষিজমি রয়েছে। আল-আরাফা ইসলামী ব্যাংকে তাঁর ৩০ লাখ টাকা ও সিটি ব্যাংকে চার লাখ টাকা দেনা রয়েছে। সিরাজুল ইসলাম ভূঁইয়ার কাছে নগদ ৬ লাখ ৩০ টাকা রয়েছে। তাঁর ৭০ হাজার টাকার স্বর্ণালংকার, ১ লাখ ৯৭ হাজার টাকার কৃষিজমি ও ৩০ হাজার টাকার অকৃষিজমি রয়েছে।


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০