শিরোনাম

বুধল ইউনিয়ন পরিষদে জন্ম মৃত্যু নিবন্ধনে অনিয়ম

| সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | পড়া হয়েছে 1318 বার

বুধল ইউনিয়ন পরিষদে জন্ম মৃত্যু নিবন্ধনে অনিয়ম

জন্ম বা মৃত্যুর ৪৫ দিন পর থেকে ৫ বছর পর্যন্ত কোন ব্যক্তি জন্ম বা মৃত্যুর নিবন্ধন ফি সাকুল্যে ২৫টাকা। জন্ম বা মৃত্যুর ৫ বছর পর কোন ব্যক্তির জন্ম বা মৃত্যুর সাকুল্য ফি ৫০টাকা। কিন্তু সে জায়গায় দেখা যায়, বুধল ইউনিয়নে জন্ম নিবন্ধন সরকারি গেজেট না মেনে পরিষদে বেশি টাকা নিচ্ছে।

বুধল ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ফারুক মেম্বার মোবাইল ফোনে এই জন্ম নিবন্ধনের বেশি টাকা নিচ্ছে বলে জানায়, ‘আমার পরিষদে উদ্যোক্তা হল ২ জন। কিন্তু বুধল ইউয়িনের চেয়ারম্যান সদস্যগণের মোবাইল নাম্বার তালিকায় উদ্যোক্তা হলো ৩জন’। ফারুক মেম্বার জানায়, এটা হলো ভূয়া তালিকা। জেলা থেকে আমাদেরকে দিয়েছে ২জন। ১জন পুরুষ ও ১জন মহিলা- ফোরকান ও লামিয়া আক্তারকে। চেয়ারম্যান আব্দুল হক এর ভাই বোরহান উদ্দিন নামের এক ব্যক্তি পরিষদের মধ্যে এসে কাজ করে এখানে বাণিজ্য করছে। ফারুক মেম্বার আরো বলে, বাহিরের লোক কেন ইউনিয়ন পরিষদে কাজ করবে? সে পরিষদের কোন কিছুই না। সে ভূয়া উদ্যোক্তা। সে এসে জন্ম নিবন্ধনের ফিস ৫০ টাকা থেকে ১০০-১২০ টাকা নিচ্ছে। ভূয়া উদ্যোক্তা বোরহান উদ্দিন। পরিষদের সচিব ফরিদ আহমেদের কাছে মোবাইল ফোনে আব্দুল হক চেয়ারম্যানের ভাই বোরহান উদ্দিন ১০০-১২০ টাকা কিভাবে নেন? প্রশ্ন করলে সচিব ফরিদ আহমেদ বলে, না সে ১০০ টাকা নেয়। ঐ টাকা ৩জন উদ্যোক্তা মিলে নেয়। আবারও প্রশ্ন করা হয়, সঠিক উদ্যোক্তা হলো ২জন। কিন্তু আমাদের কাছে যে তালিকা দিয়েছেন, সে তালিকায় উদ্যোক্তা ৩জন। সচিব উত্তর দিলেন সেই তালিকার ব্যাপারে আমি বলতে পারব না। এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান আব্দুল হক এর ফোন নাম্বারে একাধিকবার ফোন কল দিলেও তিনি কল রিসিভ করেন নি। সরকারি গেজেট অনুযায়ী ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ হতে নতুন জন্ম নিবন্ধনের প্রকাশিত তালিকার তোয়াক্কা না করে পরিষদের মনগড়া মতো অনিয়ম চালাচ্ছে।


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১