শিরোনাম

জেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে আয়োজিত জনসমাবেশে মোকতাদির চৌধুরী এম.পি

বিশ্বজয় করা ৭ মার্চের বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর বিশ্ব প্রামান্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি পেয়ে এখন বিশ্বের সম্পদে পরিনত হয়েছে

| বৃহস্পতিবার, ০৮ মার্চ ২০১৮ | পড়া হয়েছে 230 বার

বিশ্বজয় করা ৭ মার্চের বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর বিশ্ব প্রামান্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি পেয়ে এখন বিশ্বের সম্পদে পরিনত হয়েছে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি, কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য,বীর মুক্তিযোদ্ধা উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি বলেছেন,জাতির পিতা, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহান একাত্তরের ৭ মার্চে বাঙ্গালীর মনোনীত একমাত্র নেতা হিসাবে ঐতিহাসিক ভাষণটি প্রদান করেন। ঐ ভাষণে তিনি স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তির লড়াইয়ের দিকনির্দেশনা দিয়েছিলেন। এই ভাষণ থেকে প্রেরণা নিয়ে লাখে-লাখে যুবক আমরা জীবনের মায়া ত্যাগ করে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলাম। এই ভাষণটি তখন থেকেই পৃথিবীর সকল লেখক, সৃজনশীল মানুষ ও রাজনীতিবীদদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে। কবি-লেখক-সাহিত্যিকরা এ ভাষণকে কালজয়ী মহাকাব্য হিসাবে স্বীকৃতি দিয়ে থাকেন। বিশ্বজয় করা ৭ মার্চের বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর বিশ্ব প্রামান্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি পেয়ে এখন বিশ্বের সম্পদে পরিনত হয়েছে। তিনি আরো বলেন, তিনি বিএনপির উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা সন্ত্রাস, নৈরাজ্য, আগুন-সন্ত্রাস ও অপরাধকে প্রশ্রয় দেয়ার রাজনীতি ছেড়ে উন্নয়নের রাজনীতির কথা বলুন, শান্তি-সম্প্রীতির পক্ষে গণমানুষকে আহবান করুন তবেই রাজনীতির মাঠে দাঁড়াতে পারবেন। অন্যথায় এদেশের মানুষ সর্বসময়ই আপনাদের প্রত্যাখ্যান করবে। বিএনপির নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এতিমদের টাকা চুরির অভিযোগে সাজাপ্রাপ্ত হয়েছেন। আন্দোলনের হুমকি দিয়ে দুর্নীতির দায় এড়াতে পারবেন না। আদালতের মাধ্যমে বিচারিক প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়েই তাকে রাজনীতির ময়দানে আসতে হবে। তিনি বুধবার (০৭.০৩.২০১৮) বিকালে শহরের ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ভাষা চত্বরে জেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে এক জনসমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

জেলা আওয়ামীলীগের উপদপ্তর সম্পাদক মো. মনির হোসেন এর সঞ্চালনায় এসময় বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক, বীর মুক্তিযোদ্ধা জননেতা আল মামুন সরকার, সহ-সভাপতি পৌর মেয়র মিসেস নায়ার কবীর, হেলাল উদ্দিন, মুজিবুর রহমান বাবুল, যুগ্ম-সম্পাদক মাহবুবুল বারী চৌধুরী মন্টু, গোলাম মহিউদ্দিন খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক এড. মাহবুবুল আলম খোকন, শাহআলম সরকার, প্রচার সম্পাদক সৈয়দ নজরুল ইসলাম, মহিলা আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সমবায় সম্পাদক দিলারা মোস্তফা, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি হাবিবুল্লাহ বাহার, সাধারণ সম্পাদক উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম পৌর সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম,বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল ওয়াহিদ খান লাভলু,আবু হুরায়রাহ, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক এড. তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাত, জেলা কৃষকলীগ সভাপতি সাদেকুর রহমান শরীফ, জেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক মালেক চৌধুরী, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি এড. লোকমান হোসেন, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল ও সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন। অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পরিষদ সদস্য আবুল কালাম ভূঞা, সহ-সভাপতি তাজ মোহাম্মদ ইয়াছিন, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মুসলিম মিয়া। এ সময় ৭ মার্চ উপলক্ষে জেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত ছবি আঁকা, আবৃত্তি ও রচনা লিখন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী ৬০ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে পুরস্কার ও সনদপত্র বিতরণ করা হয়। আবৃত্তি করেন সাবেরা সোবহান স্কুলের শিক্ষার্থী কাজী সিমরান আলম।


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১