শিরোনাম

বিজয় দিবসের প্রস্তুতি সভায় সাধারণ সম্পাদক অনুপস্থিত

নাসিরনগর প্রতিনিধি : | বৃহস্পতিবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৭ | পড়া হয়েছে 158 বার

বিজয় দিবসের প্রস্তুতি সভায় সাধারণ সম্পাদক অনুপস্থিত

মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের প্রস্তুতি সভায় অনুপস্থিত নাসিরনগরের স্থানীয় আওয়ামীলীগের জনপ্রতিনিধি। এ নিয়ে নাসিরনগর আওয়ামীলীগ ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। এছাড়া সচেতন মহলও বিস্ময় প্রকাশ করেন।
বুধবার (১৫.১১.২০১৭) সকালে প্রস্তুতি সভায় উপজেলা প্রশাসনের সকল অফিসার, সাংবাদিক, মুক্তিযোদ্ধা সহ সকল শ্রেণি পেশার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত থাকলেও অনুপস্থিত ছিলেন স্থানীয় আওয়ামীলীগের দু’জন জনপ্রতিনিধি।

উপজেলা নির্বাহী অফিস সূত্রে জানা যায়, ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনের লক্ষ্যে এক প্রস্তুতি সভার আয়োজন করেন নাসিরনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ লিয়াকত আলী। প্রস্তুতি সভায় প্রশাসনের সকল কর্মকর্তা, সাংবাদিক, মুক্তিযোদ্ধা, ইউপি চেয়ারম্যান ও বিভিন্ন সুধীজনদের চিঠি দিয়ে দাওয়াত করেন। এতে বিভিন্ন স্তরের প্রতিনিধিগণ উপস্থিত থাকলেও কোন এক অদৃশ্য কারর্ণে অনুপস্থিত উপজেলা আওয়ামীলীগের সেক্রেটারী ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এটিএম মনিরুজ্জামান সরকার এবং যুবলীগ সভাপতি ও ভাইস চেয়ারম্যান অঞ্জন কুমার দেব।


উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ লিয়াকত আলী বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এ দেশে জন্ম নিলে আমরা একটি স্বাধীন বাংলাদেশ পেতাম না। নতুন প্রজন্মের মাঝে মহান বিজয় মাসের সঠিক ইতিহাস জানাতে হবে।

প্রস্তুতি সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ডাঃ রাফি উদ্দিন, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আবু জাফর, জেলা পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান চৌধুরী, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হামিদা লতিফ পান্না, জেলা পরিষদ সদস্য রেবেকা খানম, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রদীপ কুমার রায়, যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বেলায়েত, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক অরুণ জ্যোতি ভট্টাচার্য, সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আবুল হাশেম, গোকর্ণ ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ হাসান খা, বীরমুক্তিযোদ্ধা মোঃ সুহরাব মোল্লা, সাবেক ছাত্রলীগ আহবায়ক নাসির উদ্দিন রানা, আওয়ামীলীগ নেতা বশির আল হেলাল, প্রেসক্লাব সহ সভাপতি আক্তার হোসেন ভূঁইয়া সহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

আওয়ামীলীগের দু’জন জনপ্রতিনিধির অনুপস্থিতির কথা জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানান, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাহেবকে দাওয়াত করা হয়েছে। উনার অফিসের সহকারী চিঠি গ্রহণ করেছে। এমন কি আমি নিজে উনাকে মোবাইল ফোনে বলেছি প্রস্তুতি সভায় আসার জন্য কিন্তু তিনি আসেন নি। তিনি আমায় জানিয়েছেন উনার নাকি একটি গ্রাম্য সালিশে যেতে হবে। তাই তিনি উপস্থিত থাকতে পারবেন না।

উল্লেখ্য উপজেলা অফিস সূত্রে আরো জানা যায়, গত ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসেও উপস্থিত ছিলেন না উপজেলা আওয়ামীলীগের সেক্রেটারী এ টি এম মনিরুজ্জামান সরকার। তাকে বারবার ফোন করার পরও শোক দিবসে আসতে অপারদতা প্রকাশ করেন। বুড়িশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করার জন্য জাতীয় শোক দিবসে আসতে পারেননি আওয়ামীলীগ এ জনপ্রতিনিধি।

এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকের সাথে মোবাইল ফোনে কথা বলতে চাইলে ফোনটি বন্ধ দেখায়।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০