শিরোনাম

সেচ প্রকল্প নিয়ে বিরোধের জের

বিজয়নগরে দু’দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত শতাধিক ॥ আটক-১৫

বিজয়নগর প্রতিনিধি | সোমবার, ০৬ জানুয়ারি ২০২০ | পড়া হয়েছে 323 বার

বিজয়নগরে দু’দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত শতাধিক ॥ আটক-১৫

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে সেচ প্রকল্প নিয়ে বিরোধের জের ধরে দু’দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে পুলিশসহ উভয়পক্ষের শতাধিক লোক আহত হয়েছে। সংঘর্ষ চলাকালে প্রতিপক্ষের ১০/১২টি বাড়ি ভাংচুর করে দাঙ্গাবাজরা।

সোমবার (০৬জানুয়ারি ২০২০) সকালে উপজেলার হরষপুর ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ৫০/৬০ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ৭/৮ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। পুলিশ ঘটনাস্থল ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল থেকে ১৫জনকে আটক করেছে।


এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, বিজয়নগর উপজেলার হরষপুর ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রামের সেচ প্রকল্প নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে গ্রামের চাঁন মিয়া ও রাজু মিয়ার পক্ষের লোকজনের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে।

এই বিরোধের জের ধরে সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে উভয়পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। দেড়ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে তিন পুলিশসহ উভয়পক্ষের শতাধিক লোক আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ব্যাপক লাঠিপেটা, ৫০/৬০ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ৭/৮ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

আহতদের মধ্যে পুলিশের এ.এস.আই মোঃ অলিউল্লাহ, কনস্টেবল মোঃ মেহেদী ও মোঃ সাইফুল প্রাথমিক চিকিৎসা নেয়।
অন্যান্য আহতদের মধ্যে আলাউদ্দিন, রাজু, রুহুল আমিন, আবুল কাসেম, রানা, বাধন চৌধুরী, লোকমান, হোসাইন, মোহাম্মদ আলী, আবুল খায়ের, তাফাজ্জল, রাশেদ, আবুল কাসেম, আবুল বাসার, আলাউদ্দিন, দেলোয়ার, হৃদয় সরকার, ইদন সরকার, বকুল, সোলমান, নজরুল, আল আমিন, ধনু মিয়া, মোশারফ, হাসান, সিদ্দিক, এমরান, আলী জাহান, হাবিবুর, মোজাম্মেল, সোহেল, রিফাত, কাসেম, হেলাল, গাজী, শিরন, জরু, আলাল, মানজু, আক্কাস, রানা, আশিক, সাঈদ চৌধুরী, রিয়াজুদ্দিন, মাসুম, সালাউদ্দিন, জিহাদ, গিয়াস মিয়া, আক্তার, দুলাল, গেদু মিয়া, আলী আকবর, কাহার মিয়া, সায়েদ, ছফু মিয়া, আকাশ, জামাল, সফিকসহ ৮০ জন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি ও প্রাথমিক চিকিৎসা নেয়। অন্যরা পুলিশের গ্রেপ্তারের ভয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিক ও স্থানীয়ভাবে ভর্তি ও চিকিৎসা নেন।

এ ব্যাপারে হরষপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের মেম্বার মোঃ আবুল কাশেম জানান, পাইকপাড়া গ্রামের সেচ প্রকল্পটি দীর্ঘদিন ধরে চাঁন মিয়া গ্রুপের মোঃ কাউছার পরিচালনা করতেন। চলতি বছর কাউছার মিয়ার বেশ কয়েকজন লোক রাজু মিয়ার দলে যোগ দেয়। এ বছর রাজু মিয়া সেচ প্রকল্পটি পরিচালনার দাবি করলে কাউছারের সাথে রাজু মিয়ার বিরোধের সৃষ্টি হয়। এই বিরোধকে কেন্দ্র করে গত তিন জানুয়ারি উভয়পক্ষের মধ্যে মারামারি হয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করেই সোমবার উভয়পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

এ ব্যাপারে বিজয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আতিকুর রহমান বলেন, সেচ প্রকল্প নিয়ে বিরোধের জের ধরেই এই সংঘর্ষ হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ব্যাপক লাঠিপেটা এবং ৫০/৬০ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ৭/৮ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। তিনি বলেন, সংঘর্ষে তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। তিনি বলেন, ঘটনাস্থল ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল থেকে ১৫ দাঙ্গাবাজকে আটক করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আছে। ফের সংঘর্ষ এড়াতে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। তিনি বলেন, এ ঘটনায় বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত কোনপক্ষই থানায় মামলা দায়ের করেন নি।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০