শিরোনাম

বিজিবি’র অভিযানে ভারতীয় মাদকদ্রব্য ও মাছ পাচারকারী আটক

| সোমবার, ০৭ মে ২০১৮ | পড়া হয়েছে 171 বার

বিজিবি’র অভিযানে ভারতীয় মাদকদ্রব্য ও মাছ পাচারকারী আটক

গত ৫ মে ২৫ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন সরাইল এর অধিনস্থ আজমপুর বিওপি’র টহল কমান্ডার হাবিলদার মোঃ তাইফুর রহমান গোপন সূত্রের তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারেন, আখাউড়া থানার আজমপুর বিওপির আওতাধীন চিহ্নিত মাদকদ্রব্য ব্যবসায়ী মোঃ কালু মিয়া (২৬), পিতা- দুদু মিয়া, গ্রামঃ নুরুলাপুর, পোঃ মাধবদী, থানাঃ মাধবদী, জেলাঃ নরসিংদী আজমপুর সীমান্ত এলাকা হতে কাঁধে করে ভারতীয় মাদকদ্রব্য নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের দিকে যাচ্ছে। তাৎক্ষণিক বিজিবি টহল দল ঘটনা স্থলের উদ্দেশ্যে রওনা করে আনুমানিক ৫ মে রাত ১১টা ৫০ মিনিটে আজমপুর এলাকায় পৌঁছে রাস্তার পাশে ফাঁদ পেতে থাকে। মাদক চোরাকারবারী বিজিবি টহল দলের নিকট আসলে বিজিবি টহল দল ধাওয়া করে ১০ বোতল ফেন্সিডিল এবং ৯৫ বোতল ইস্কফসহ মোঃ কালু মিয়া (২৬), পিতা- দুদু মিয়া, গ্রামঃ নুরুলাপুর, পোঃ মাধবদী, থানাঃ মাধবদী, জেলাঃ নরসিংদীকে আটক করতে সক্ষম হয় বিজিবি। বর্ণিত চোরাকারবারীকে অবৈধ মালামালসহ আখাউড়া থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। আটককৃত মাদকদ্রব্যের সিজার মূল্য= ৪২,০০০ হাজার টাকা ।

এছাড়াও গতকাল ৬ মে ভোর ৬টায় ঘাগুটিয়া বিওপি’র টহল কমান্ডার হাবিলদার মোঃ ওসমান গোপন সূত্রের তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারে, কয়েকজন চোরাকারবারী বিপুল পরিমাণ বাংলাদেশী মাছ ভারতে পাচার করার উদ্দেশ্যে ঘাগুটিয়া সীমান্ত এলাকার দিকে নিয়ে যাচ্ছে। সংবাদ পাওয়া মাত্রই টহল দল ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে গমন করে ১৫০ কেজি বিভিন্ন প্রকার বাংলাদেশী মাছসহ মোঃ জালাল মিয়া (৩২), পিতা- আব্দুর রফিক, গ্রাম- ভোল্লাবাড়ী, পোঃ বাড়াই, থানা- কসবা, জেলা- বি-বাড়িয়া, শাহ আলম (৩২), পিতা- মৃত মজু মিয়া, গ্রাম- ধর্মনগর, পোঃ কর্মমঠ, থানা- আখাউড়া, জেলা- বি-বাড়িয়া, মোঃ আব্দুর রউফ (২৭), পিতা- মোঃ আলী, গ্রাম- ধর্মনগর, পোঃ কর্মমঠ, থানা- আখাউড়া, জেলা- বি-বাড়িয়াদের আটক করতে সক্ষম হয়। বর্ণিত চোরাকারবারীদেরকে আখাউড়া থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। আটককৃত বাংলাদেশী মাছের সিজার মূল্য আনুমানিক ৩০,০০০ হাজার টাকা। আটককৃত মালামালের সর্বমোট সিজার মূল্য =৭২,০০০ হাজার টাকা।-প্রেস বিজ্ঞপ্তি


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১