শিরোনাম

সরাইলের শাহবাজপুর ব্রীজের রেলিং ভেঙ্গে যাওয়ায়

বিকল্প সড়ক দুটোতে তীব্র যানজট ॥ যাত্রীদের দুভোর্গ চরমে

সরাইল প্রতিনিধি | শুক্রবার, ২১ জুন ২০১৯ | পড়া হয়েছে 295 বার

বিকল্প সড়ক দুটোতে তীব্র যানজট ॥ যাত্রীদের দুভোর্গ চরমে

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার শাহবাজপুরে তিতাস নদীর উপর থাকা জরাজীর্ণ ব্রীজের রেলিং ভেঙ্গে যাওয়ায় ব্রীজটি দিয়ে সীমিত আকারে হালকা যানবাহন চলাচল করছে।

ভারী ও মাঝারী আকারের যানবাহনগুলো চলাচল করছে বিকল্প পথ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর-সরাইল ও হবিগঞ্জের লাখাই-হবিগঞ্জ সড়ক এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরের চান্দুরা-আখাউড়া আঞ্চলিক সড়ক দিয়ে। ওই দুটো সড়কে তীব্র যানজট হওয়ায় বিভিন্ন যানবাহনে থাকা যাত্রীরা সীমাহীন দুভোর্গের শিকার হচ্ছেন।


এর মধ্যে ঢাকা থেকে বৃহত্তর সিলেটগামী যানবাহনগুলোকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর-সরাইল ও হবিগঞ্জের লাখাই-হবিগঞ্জ সড়ক দিয়ে এবং বৃহত্তর সিলেট থেকে আসা ঢাকা ও চট্টগ্রামগামী যানবাহনগুলোকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার চান্দুরা-আখাউড়া আঞ্চলিক সড়ক দিয়ে চলাচল করছে।

এদিকে সরু ও আঞ্চলিক সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল করতে গিয়ে মহাসড়কের প্রায় ২০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর-সরাইল ও হবিগঞ্জের লাখাই-হবিগঞ্জ সড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিশ্বরোড থেকে নাসিরনগরের ধরন্তিঘাট পর্যন্ত প্রায় ১০ কিলোমিটার এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরের চান্দুরা-আখাউড়া আঞ্চলিক সড়কের বিজয়নগর উপজেলার চান্দুরা থেকে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর পর্যন্ত যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।
উভয় সড়কেই অত্যন্ত ধীরগতিতে যানবাহন চলাচল করতে দেখা গেছে।

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার শাহবাজপুরে তিতাস নদীর উপর থাকা পুরানো ও জরাজর্ণ ব্রীজটির পূর্বদিকের রেলিং ভেঙ্গে সেতুর একাংশসহ নদীতে পড়ে যায়। এরপর থেকে ব্রীজটির উপর দিয়ে ভারী এবং মাঝারি আকারের যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়।

গত বৃহস্পতিবার দুপুরে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় সরু ও আঞ্চলিক সড়ক দিয়ে অত্যন্ত ধীরগতিতে ভারী ও মাঝারী আকারের যানবাহন চলাচল করায় মহাসড়কজুড়ে তীব্র যানজট। এতে করে বিভিন্ন যানবাহনে থাকা যাত্রীরা সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছে।

বিজয়নগর উপজেলার চান্দুরা-আখাউড়া সড়কের প্রায় তিন কিলোমিটার রাস্তা খানাখন্দে ভরা। এই রাস্তা দিয়ে ঝুঁকি নিয়েই বিভিন্ন যানবাহন চলাচল করছে।
অপরদিকে সরাইল-নাসিরনগর-লাখাই-হবিগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কটি সরু হওয়ায় সদর উপজেলার বিশ্বরোড থেকে নাসিরনগর উপজেলার ফান্দাউক পর্যন্ত রাস্তাটি সরু হওয়ায় অত্যন্ত ধীর গতিতে যানবাহন চলাচল করছে।

সিলেট থেকে নারায়নগঞ্জগামী যাত্রী মোঃ সিরাজ মিয়া বলেন, তার বাড়ি নারায়নগঞ্জ জেলায়। তিনি বলেন, ব্যবসায়িক কাজে তিনি সিলেট গিয়েছিলেন। গত বৃহস্পতিবার সকালে কয়েক ঘন্টা বাসে বসে থেকে পরে তিনি ১০ কিলোমিটার হেটে শাহবাজপুর থেকে বিশ্বরোড এসেছেন।

একই ধরনের কথা জানালের বাসযাত্রী গৃহবধূ সেলিনা বেগম। তিনি বলেন, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নেয়ার জন্য তিনি গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে দুটো বাচ্চা নিয়ে ঢাকা থেকে সিলেটের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। কিন্তু বিশ্বরোডে এসে যানজটে আটকা পড়েছেন। তিনি বলেন, দুই ঘন্টা ধরে বিশ্বরোডে বাসে বসে আছি। কখন যে সিলেটে পৌছতে পারব তা একমাত্র আল্লাহই জানেন।

এ ব্যাপারে সরাইল উপজেলার শাহবাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রাজিব আহমেদ অভিযোগ করে বলেন, শাহবাজপুর ব্রীজটি অত্যন্ত পুরানো ও জরাজীর্ণ অবস্থায় ছিলো। সেতুর পাশেই তিতাস নদীতে আরেকটি ব্রীজ নির্মান করছে সড়ক ও জনপথ বিভাগ। আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই নতুন ব্রীজটি চালু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, পুলিশকে ম্যানেজ করে জরাজীর্ন ব্রীজ দিয়ে অতিরিক্ত মালবাহী ট্রাক চলাচল করায় ব্রীজটি বিকল হয়। ব্রীজের রেলিংসহ একাংশ ভেঙ্গে নদীতে পড়ে যায়।

এ ব্যাপারে খাটিহাতা হাইওয়ে পুলিশ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ হোসেন সরকার জানান, সেতুটি বিকল হওয়ায় অতিরিক্ত যানবাহনের চাপ সামলাতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছি। তিনি বলেন, দুটো আঞ্চলিক মহাসড়কেই তীব্র যানজট। তবে তা বুধবারের চেয়ে একটু কম।

এ ব্যাপারে সড়ক ও জনপথ বিভাগ, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নির্বাহী প্রকৌশলী শামীম আল আমীন বলেন, ব্রীজটির মেরামত কাজ চলছে। আশা করি ১০/১২ দিনের মধ্যে মেরামত কাজ শেষ হবে।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১