শিরোনাম

বাঞ্ছারামপুরে অপহৃত স্কুল ছাত্রদের উদ্ধার ও বিচার দাবিতে মানববন্ধন

বাঞ্ছারামপুর প্রতিনিধি : | মঙ্গলবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৭ | পড়া হয়েছে 167 বার

বাঞ্ছারামপুরে অপহৃত স্কুল ছাত্রদের উদ্ধার ও বিচার দাবিতে মানববন্ধন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলা সদরে ৪র্থ শ্রেনীর ২ স্কুল ছাত্র হৃদয় ও সাদিক অপহরনের ৭ মাস পার হয়ে গেলেও তাদেও উদ্ধার ও গত ৭ নভেম্বর উপজেলা সদরে শিশু হৃদয়ের লাশ উদ্ধার করার পরও কেন যথাযথ বিচার হচ্ছে না সেই দাবিতে আজ মঙ্গলবার (১৪.১১.২০১৭) সকালে এলাকার বিপুল সংখ্যক স্কুলছাত্র ও এলাকাবাসী সম্মিলিতভাবে প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন করে। মানববন্ধনে উপস্থিত গত সপ্তাহে পুলিশ কর্তৃক উদ্ধারকৃত হৃদয়ের লাশের কথা উল্লেখ করে হৃদয়ের মা নাজমা বেগম আহাজারী করে বলেন,-‘অপহরনকারীদের দাবিনুযায়ী ২০ লাখ টাকা দিতে পারিনি বলে আমার সন্তানকে হত্যা করা হয়েছে। অপহরনকারীদের পুলিশ কর্তৃক গ্রেফতার করার তারা অপহরনের কথা আদালতে স্বীকারও করে। তা হলে কেন তাদরি বিচার হচ্ছে না।’
আরেক অপহৃত শিশু সাদিকের পিতা মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘আমার ছেলেকে একই অপহরনকারী গং অপহরণ করেছে। তারা দোষ স্বীকার করেও কেন আমার সন্তানের সন্ধান বের করতে পারছেন না’।
প্রতিবাদ সভায় মূল বক্তব্য রাখেন বাঞ্ছারামপুর পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি কামাল আহমেদ। প্রতিবাদ সভা শেষে প্রশাসনের নিকট স্মারকলিপি প্রদান করেন অপহৃতের অভিভাবকরা।
এই বিষয়ে বাঞ্ছারামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, ‘আমার জানা মতে মামলাটি এখন সিআইডি পুলিশ তদন্ত করছে গত ১০ আগষ্ট থেকে। আমি মামলাটি যেনো দ্রুতগতি পায় সে বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মহলে কথা বলবো’।
অপহৃত স্কুল ছাত্রদের উদ্ধার ও বিচার দাবিতে মানববন্ধন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলা সদরে ৪র্থ শ্রেনীর ২ স্কুল ছাত্র হৃদয় ও সাদিক অপহরনের ৭ মাস পার হয়ে গেলেও তাদেও উদ্ধার ও গত ৭ নভেম্বর উপজেলা সদরে শিশু হৃদয়ের লাশ উদ্ধার করার পরও কেন যথাযথ বিচার হচ্ছে না সেই দাবিতে আজ মঙ্গলবার (১৪.১১.২০১৭) সকালে এলাকার বিপুল সংখ্যক স্কুলছাত্র ও এলাকাবাসী সম্মিলিতভাবে প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন করে। মানববন্ধনে উপস্থিত গত সপ্তাহে পুলিশ কর্তৃক উদ্ধারকৃত হৃদয়ের লাশের কথা উল্লেখ করে হৃদয়ের মা নাজমা বেগম আহাজারী করে বলেন,-‘অপহরনকারীদের দাবিনুযায়ী ২০ লাখ টাকা দিতে পারিনি বলে আমার সন্তানকে হত্যা করা হয়েছে। অপহরনকারীদের পুলিশ কর্তৃক গ্রেফতার করার তারা অপহরনের কথা আদালতে স্বীকারও করে। তা হলে কেন তাদরি বিচার হচ্ছে না।’
আরেক অপহৃত শিশু সাদিকের পিতা মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘আমার ছেলেকে একই অপহরনকারী গং অপহরণ করেছে। তারা দোষ স্বীকার করেও কেন আমার সন্তানের সন্ধান বের করতে পারছেন না’।
প্রতিবাদ সভায় মূল বক্তব্য রাখেন বাঞ্ছারামপুর পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি কামাল আহমেদ। প্রতিবাদ সভা শেষে প্রশাসনের নিকট স্মারকলিপি প্রদান করেন অপহৃতের অভিভাবকরা।
এই বিষয়ে বাঞ্ছারামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, ‘আমার জানা মতে মামলাটি এখন সিআইডি পুলিশ তদন্ত করছে গত ১০ আগষ্ট থেকে। আমি মামলাটি যেনো দ্রুতগতি পায় সে বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মহলে কথা বলবো’।


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০