শিরোনাম

বাঁশের তৈরি শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানালো শিক্ষার্থীরা

নাসিরনগর প্রতিনিধি : | বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | পড়া হয়েছে 163 বার

বাঁশের তৈরি শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানালো শিক্ষার্থীরা

শিক্ষার্থীরা কেউ দেখেনি গৌরবের সেই ভাষা আন্দোলন। শিক্ষার্থীদের ইচ্ছে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে থাকবে সুন্দর একটি শহীদ মিনার। সেই শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাবে ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা। দিন যায়, মাস যায়, যায় বছরও। তবুও নাসিরনগর উপজেলার অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী এমনি শিক্ষকদের এ ইচ্ছে পূরণ হয় না। উপজেলার যে কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার রয়েছে, তাও হতশ্রী ও ভাঙাচোরা টাইপের। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ি সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে একুশে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপনের কথা। কিন্তু উপজেলার অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্থায়ী শহীদ মিনার নেই।

ফলে বাধ্যবাধকতা থাকায় শহীদ মিনারবিহীন বিদ্যালয়গুলোতে কলাগাছ, বাঁশ, কাঠ ও কাগজ এর তৈরি অস্থায়ী শহীদ মিনারে ২১ ফেব্রুয়ারি সকালে নিজেদের তৈরি শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানায় শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী। শোক আর প্রাপ্তির গৌরবকে শ্রদ্ধায় স্মরণ করে আজ বুধবার (২১.০২.২০১৮) সকালে উপজেলার হরিণবেড় শাহজাহান উচ্চ বিদ্যালয় ও হরিণবেড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ভাষা শহীদদের স্মরণে প্রভাতফেরি শেষে হরিণবেড় শাহজাহান উচ্চ বিদ্যালয় চত্বরে বাঁেশর তৈরি শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। তারপরও ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে একুশের আয়োজনের অংশ হতে পেরে শিক্ষার্থীরা আনন্দিত।


হরিনবেড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিমল চন্দ্র রায় জানান, আমার বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নেই, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী দিবসটি উদযাপনে বাধ্যবাধকতা থাকায় ২১ ফেব্রুয়ারিতে পার্শ্ববর্তী শাহজাহান উচ্চ বিদ্যালয়ে নিজেদের তৈরি বাঁশের অস্থায়ী শহীদ মিনারে বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষার্থীরা প্রভাতফেরি শেষে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

নাসিরনগর উপজেলায় ১২৬টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১৭টি মাধমিক বিদ্যালয়, ২টি স্কুল এন্ড কলেজ, ২টি কলেজ ও ৬টি মাদ্রাসা রয়েছে। এরমধ্যে ৪টি কলেজ ও ৫টি বিদ্যালয়ে স্থায়ী শহীদ মিনার আছে।

সহকারী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রবিউল আলম বিভিন্ন বিদ্যালয়ে অস্থায়ী শহীদ মিনারে শিক্ষক শিক্ষার্থীরা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছে নিশ্চিত করে তিনি জানান, প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসটি পালনের বাধ্যবাধকতার জন্য মন্ত্রণালয়ের পাঠানো পরিপত্র দেয়া হয়েছে। তবে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্থায়ীভাবে শহীদ মিনার নির্মাণের বাধ্যবাধকতার বিষয়ে কোন নির্দেশনা নেই বলেও জানান তিনি।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১