শিরোনাম

ফরিদপুরে সাজেদার গাড়িবহরে হামলা

ডেস্ক রিপোর্ট : | শুক্রবার, ১৩ অক্টোবর ২০১৭ | পড়া হয়েছে 94 বার

ফরিদপুরে সাজেদার গাড়িবহরে হামলা

জাতীয় সংসদের উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর গাড়িবহরে হামলার চালানোর অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার (১৩.১০.২০১৭) বেলা আড়াইটার দিকে ফরিদপুরের নগরকান্দায় তালমার মোড় এলাকায় এ হামলা হয় বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ গুলি ছুড়েছে। পুলিশের একটি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। আহত হয়েছেন নগরকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এফ এম নাসিম।


প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সাজেদা চৌধুরী দুই দিনের সফরে শুক্রবার দুপুরে সালথায় আসছিলেন। এ উপলক্ষে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে নগরকান্দার তালমার মোড় এলাকায় নেত্রীকে স্বাগত জানাতে দলীয় নেতা-কর্মীরা অবস্থান নেন। ওই সময় সাজেদা চৌধুরীর সমর্থক বলে পরিচিত একদল লোক আগামী সংসদ নির্বাচনে ফরিদপুর-২ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী নগরকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জামাল হোসেন মিয়ার পোস্টার ও তোরণ ভাঙচুর করে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। ভাঙচুরের খবর পেয়ে জামালের সমর্থকেরা সমবেত হয়ে তালমার মোড়ে পেট্রলপাম্প এলাকায় অবস্থান নেয়। সাজেদার চৌধুরীর সমর্থকেরা তালমার মোড় হয়ে নগরকান্দায় ঢোকার সড়কের মুখে অবস্থান নেয়। ইতিমধ্যে পুলিশও ঘটনাস্থলে পৌঁছে সংঘর্ষ এড়াতে দুই পক্ষের মধ্যে অবস্থান নেয়।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেলা আড়াইটার দিকে সাজেদা চৌধুরীর গাড়িবহর তালমার মোড় অতিক্রম করার সময় পেট্রলপাম্পের সামনে অবস্থানরত জামালের সমর্থকেরা গাড়িবহর লক্ষ্য করে ইট ছুড়তে শুরু করেন। ইটের আঘাতে নগরকান্দা সার্কেল এএসপি মহিউদ্দিনের মাইক্রোবাসের কাচ ভেঙে যায়। এ ছাড়া সাজেদা চৌধুরী ও তাঁর ছেলে আয়মন আকবর চৌধুরীর গাড়িতে ইট লাগে। তবে তাঁদের বড় ধরনের কোনো ক্ষতি হয়নি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের সময় ইটের আঘাতে আহত হন নগরকান্দা থানার ওসি নাসিম। তাঁকে নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

ওসি নাসিম বলেন, ইটের আঘাতে বহরের একটি গাড়ির কাচ ভেঙে গেছে এবং তিনি আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ কয়েকটি গুলি ছুড়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে জামাল হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, যে পোস্টার-তোরণ ভাঙচুর করা হয়েছে, সেখানে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ছিল। এ কারণেই জনতা ক্ষুব্ধ হয়ে ভাঙচুর প্রতিরোধ করতে গেলে এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

আয়মন আকবরের সমর্থক বলে পরিচিত সালথা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ওয়াহেদুজ্জামান বলেন, সংসদ উপনেতা সাজেদা চৌধুরীর গাড়িবহর তালমার মোড় অতিক্রম করার সময় জামাল হোসেনের সমর্থকেরা হামলা চালান। তবে তিনি অক্ষত আছেন। বর্তমানে তিনি সালথার রসুলপুরে নিজ বাড়িতে অবস্থান করছেন। সেখানে গিয়ে তাঁর সঙ্গে দেখা করেছেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার। তথ্য : প্রথম আলো।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০