শিরোনাম

পয়াগ-নরসিংসার এ বারী উচ্চ বিদ্যালয়ের অনিয়মের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার | শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০১৯ | পড়া হয়েছে 730 বার

পয়াগ-নরসিংসার এ বারী উচ্চ বিদ্যালয়ের অনিয়মের অভিযোগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার ০৯ নং নাটাই দক্ষিণ ইউনিয়নের পয়াগ-নরসিংসার এ বারী উচ্চ বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

নিয়োগ প্রত্যাশী সূত্রে জানা গেছে, বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ তাদের পছন্দের এক প্রার্থীকে অফিস সহকারী পদে নিয়োগ দেওয়ার জন্য কোন প্রকার নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করেই প্রায় চূড়ান্ত করে ফেলেছে নিয়োগ প্রক্রিয়া। এ নিয়ে এলাকার সচেতন মানুষের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।


আজ সোমবার (০৮.০১.২০১৮) দুপুরে এ বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আতাউর রহমান বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির অনুমতি ছাড়া কোন প্রকার তথ্য দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন। একটি সূত্র জানায়, পছন্দের লোককে নিয়োগ দেওয়ার জন্য সকল কাজ খুবই তড়িগড়ি করে সম্পন্ন করা হয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পত্রিকায় প্রকাশ করার কথা থাকলেও তা কোন পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়নি। বিদ্যালয়ের দেওয়ালে ছোট একটি কাগজে অফিস সহকারি পদে নিয়োগের একটি বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে। যাতে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের স্বাক্ষর রয়েছে ৩১/১২/২০১৭ইং আর সাক্ষাতের জন্য প্রার্থীদেরকে ডাকা হয়েছে ০৪/০১/২০১৮ইং। মাত্র তিন দিনের ব্যবধানে কেন নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতেই হবে এমন প্রশ্নের কোন জবাব দেননি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আতাউর রহমান।

সূত্র জানায়, নিয়োগ প্রক্রিয়া চূড়ান্ত হয়ে গেছে কিন্তু কোন নিয়োগ কমিটি গঠন করা হয়নি। এনিয়ে কমিটির লোকদের মাঝেও দ্বিধাভিভক্তি রয়েছে বলেও জানা যায়।

নিয়োগ প্রত্যাশী একটি সূত্র জানায়, পছন্দের প্রার্থীর তালিকায় রয়েছেন মোঃ হানিফ মিয়া। তিনি এসএসসিতে ২.৬৩, এইচএসসিতে ২.২০, স্নাতকে তৃতীয় শ্রেণি এবং এম.এস-এ দ্বিতীয় শ্রেণি লাভ করেছেন।

অপরদিকে তার প্রতিদ্বন্দ্বিদের মধ্যে মোঃ ছগির হোসেন তিনি এসএসসিতে ৪.৩১, এইচএসসিতে ৩.৮০, বিবিএস অনার্স-এ প্রথম শ্রেণি, এমবিএস অনার্স-এ দ্বিতীয় শ্রেণি এবং তিনি কম্পিউটার ডিপ্লোমা ডিগ্রীধারী।

অন্যদিকে অপর প্রার্থী মোঃ ওবায়দুল্লাহ যার এসএসসিতে ৩.৫০, এইচএসসিতে ৪.০০, বিএস অনার্স-এ প্রথম শ্রেণি এবং এমএ অনার্স-এ প্রথম শ্রেণির ডিগ্রী রয়েছে।

সচেতন মহল মনে করেন যোগ্যতা সম্পন্ন লোককে নিয়োগ দিলেই বিদ্যালয়ের উন্নতি হবে।

এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতির সাথে মোঠে ফোনে তাকে প্রশ্ন করা হয়েছিল পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ ছাড়া এবং অল্প সময়ে এই নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার বিষয়ে আপনার প্রতিক্রিয়া কী? তিনি জানান, অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে এ রকম কোন বাধ্যবাদকতা নেই।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জীবন ভট্টচার্য এর সাথে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ে বিদ্যালয় থেকে আমাকে কিছুই জানানো হয়নি।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১