শিরোনাম

পিকনিকের বাস খাদে, আহত ১৫ শিক্ষার্থী

আখাউড়া প্রতিনিধি : | সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | পড়া হয়েছে 609 বার

পিকনিকের বাস খাদে, আহত ১৫ শিক্ষার্থী

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়ায় শিক্ষা সফরের বাস খাদে পড়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ ১৫ জন আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে আজ সোমবার (২৬.০২.২০১৮)সকাল সাড়ে ৯টায় উপজেলার বাইপাস সড়কের মসজিদপাড়া এলাকায়।

ঘটনার পর স্থানীয় জনগন, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌছে তাদেরকে উদ্ধার করে। আহতদের মধ্যে ৬জনকে জেলা সদর হাসপাতাল ও বাকীদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি ও চিকিৎসা দেওয়া হয়। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সামছুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।


প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, জেলার কসবা উপজেলার আলহাজ্ব শাহআলম ডিগ্রী কলেজের সম্মান বর্ষের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকসহ ৫০ জন শিক্ষা সফরে মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গলের লাউয়ায়ছড়া যাওয়ার জন্য তিশা পরিবহনের একটি বাস (ঢাকা মেট্রো হ ১৪-৯১৩৫) নিয়ে রওয়ানা হন। বাসটি সকাল সাড়ে নয়টার দিকে আখাউড়ার বাইপাস এলাকা দিয়ে মসজিদ পাড়া এলাকায় পৌছে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি বিদ্যুতের খুঁটি ও একটি বাড়ির টিনের সীমানা প্রাচীর ভেঙ্গে খাদে পড়ে যায়। এসময় বাসের ভেতরের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা আটকা পড়ে চিৎকার করতে থাকেন। তাৎক্ষনিকভাবে স্থানীয় লোকজন এসে বাসের সামনের ও পিছনের দিকের কাচ ভেঙ্গে ভেতরে থাকা শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। আহতদের মধ্যে প্রভাষক রাসেল মিয়া ও মোঃ মোকাদ্দেস, শিক্ষার্থী স্বর্ণা আক্তার ও তামান্না আক্তারকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
কলেজের প্রভাষক সেলিম রেজা জানান, হঠাৎ করে বাসটি টালমাটাল করতে থাকে। এক পর্যায়ে সড়কের বামপাশে খাদে পড়ে একটি বৈদ্যুতিক খুঁটিতে গিয়ে আঘাত হানে। দুর্ঘটনার পর সবাই বাসের ভেতর আটকে গেলে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে তাদেরকে উদ্ধার করেন।

উদ্ধার কাজে অংশ নেয়া বুলু শীল জানান, বাড়ি থেকেই বিকট শব্দ তিনি শুনতে পান। জানালা খুলে বাসটিকে খাদে পড়ে থাকতে দেখে ছুটে যান। বাসের কাছে গিয়ে বাঁচাও বাঁচাও চিৎকার শুনে উদ্ধার কাজে নামেন। এরই মধ্যে কয়েকজন মিলে বাসের সামনের ও পিছনের দিকে কাচ ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে। বেশ কয়েক হিজড়া উদ্ধার কাজে ভূমিকা নেয়। শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের ব্যাগসহ বিভিন্ন পণ্য হিজড়ারা বাড়িতে নিয়ে রাখে ও প্রত্যেকেরটা বুঝিয়ে দেয়।

রাধানগরের ইন্দ্রজিৎ নামে এক যুবক জানান, তিনিও উদ্ধার কাজে অংশ নিয়েছিলেন। যে স্থানে দুর্ঘটনা ঘটেছে সেখানে প্রচুর কাদামাটি রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, মাটি বহনকারি ট্রাক্টর থেকে এসব মাটি পড়ে ভোরে হওয়া বৃষ্টির কারণে জায়গাটি পিচ্ছিল হয়ে যায়। আর এতেই দুর্ঘটনা ঘটে থাকতে পারে।

রুমানা নামে এক হিজড়া জানান, বাসটি তাদের বাড়ির সীমানা প্রাচীর ভেঙ্গে ফেলে। শব্দ পেয়ে তাৎক্ষনিকভাবেই তারা উদ্ধার কাজে অংশ নেন। বাসে থাকা লোকজনের মালপত্র বাড়ি এনে নিরাপদে রাখা হয় ও পরে তাদেরকে দিয়ে দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে আলহাজ শাহ আলম কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ আকরাম খান বলেন, ‘কলেজের পক্ষ থেকে এ আয়োজন করা হয় নি। কলেজ থেকে কোনো ধরণের অনুদানও দেয়া হয় নি। অনার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীরা নিজেদের উদ্যোগে এই আয়োজন করে। তবে তারা বিষয়টি আমাদেরকে অবগত করেছিল।

এ ব্যাপারে আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মোশারফ হোসেন তরফদারের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১