শিরোনাম

কর্মচারীদের দেয়া সংবর্ধনার জবাবে সিজেএম মোঃ মনির কামাল

ন্যায় বিচার কিভাবে প্রতিষ্ঠা করা যায় সেটাই ছিল আমার লক্ষ্য

| শুক্রবার, ২০ এপ্রিল ২০১৮ | পড়া হয়েছে 103 বার

ন্যায় বিচার কিভাবে প্রতিষ্ঠা করা যায় সেটাই ছিল আমার লক্ষ্য

ব্রাহ্মণবাড়িয়া চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ মনির কামাল বলেছেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের সিনিয়র জুডিসিয়াল ও জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটসহ আদালতের কর্মকর্তা কর্মচারীদের অভিভাবক হিসেবে আমি কাজ করেছি। কর্মকর্তা কর্মচারীদের ভাল হোক আর খারাপ আচরণই হোক সেটি ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করার জন্যই করেছি। ন্যায় বিচার কিভাবে প্রতিষ্ঠা করা যায় সেটাই ছিল আমার লক্ষ্য। তিনি বলেন, চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের নতুন ভবনের আশপাশে বিভিন্ন উন্নয়নের কাজ আমি একা ভোগ করার জন্য করিনি। এটা সাধারণ জনগণ তথা ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাসীর জন্য করেছি।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ও অত্র আদালতের কর্মকর্তা কর্মচারী কর্তৃক আয়োজিত জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত সম্মেলন কক্ষে সংবর্ধনার জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।


অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে মনির কামাল আরো বলেন, আমি চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট হিসেবে যোগদানের পর বহু মামলা নিষ্পত্তি, মাদক ধ্বংস, পিপি, এপিপি, ডাক্তারদের নিয়ে সভা সেমিনার এবং অত্র আদালতের কর্মকর্তা কর্মচারীদের ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার জন্য প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছি।

চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের নাজির সমুন সময় চৌধুরীর উপস্থাপনায় বক্তব্য রাখেন সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট শরাফ উদ্দিন আহমেদ, ফারজানা আহমেদ, সুলতান সোহাগ উদ্দিন, পুলিশের কোর্ট পরিদর্শক মাহাবুবুর রহমান, শরিফুল ইসলাম, আশিকুর রহমান, রায়হানা আক্তার, কাজী উজ্জল, জিয়াউল আমিন প্রমুখ। এ সময় অত্র আদালতের কর্মকর্তা কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১