শিরোনাম

যশোর ঈদগাহ মাঠে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায়

নৌকায় ভোট দিয়ে মানুষের সেবা করার সুযোগ দিন: প্রধানমন্ত্রী

বিশেষ প্রতিনিধি : | রবিবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০১৭ | পড়া হয়েছে 120 বার

নৌকায় ভোট দিয়ে মানুষের সেবা করার সুযোগ দিন: প্রধানমন্ত্রী

আবারও নৌকা প্রতীকে ভোট চাইলেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘আপনারা নৌকায় ভোট দিয়ে মানুষের সেবা করার সুযোগ দিন।’ আজ রোববার (৩১.১২.২০১৭) যশোর ঈদগাহ মাঠে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় তিনি এই আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘কারা নৌকায় ভোট দেবেন, তারা হাত তুলে দেখান।’ এ সময় জনসভায় উপস্থিত জনতা হাত তুলে নৌকায় ভোট দেওয়ার অঙ্গীকার করে।


উল্লেখ্য, ৫ বছর পর যশোর সফর করেন শেখ হাসিনা। এ সময় বর্তমান সরকারের বেশ কিছু উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের উদ্বোধন এবং ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী।

৩২ মিনিটের বক্তব্যে শেখ হাসিনা বলেন, ‘বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। আমরা সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে দেশ চালাই। বাংলাদেশকে ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত দেশ হিসেবে গড়ে তুলবো।’ তিনি বলেন, ‘আমি শেখ হাসিনা, বঙ্গবন্ধু কন্যা। দুর্নীতি করতে ক্ষমতায় আসিনি, এসেছি জনগণের কল্যাণ করতে।’

বিএনপি-জামায়াত জোটের শাসন আমলের কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, ‘হত্যা, খুন, মানুষ পোড়ানো ও ধ্বংস করা এটাই তাদের কাজ।’

২০১৪ সালে নির্বাচন ঠেকানোর নামে তাদের আন্দোলনের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা রাস্তা করি, তারা রাস্তা কাটে। আমরা গাছ লাগাই, তারা কাটে। ধ্বংসাত্মক কাজ যারা করে, তারা দেশের মঙ্গল ও কল্যাণ করতে পারে না। বিএনপি-জামায়াত যখনই সুযোগ পায়, মানুষের ওপর অত্যাচার করে। লুটপাট, দুর্নীতি, মানুষ খুন করে। আপনারা নিশ্চয়ই ভুলে যাননি, নির্বাচন ঠেকানোর নামে ২০১৪ সালে তারা কী করেছিল।’

বিএনপির শাসন আমলের সাথে নিজেদের শাসন আমলের কথা তুল ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মানুষ সামনের দিকে এগোয়, তারা পেছনের দিকে চলে। ভূতের পা পেছনের দিকে চলে।’ তিনি বলেন, ‘আমরা বিজয়ী জাতি হিসেবে বিশ্বসভায় মাথা উঁচু করে এগিয়ে যেতে চাই। ভিক্ষা চেয়ে এদেশ চলবে না। মাথা উঁচু করে চলবো; এটাই আমদের লক্ষ্য। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে এদেশ এগিয়ে যায়, মানুষের কল্যাণে কাজ করে যায়। আমরা উন্নয়ন করি, বিএনপি-জামায়াত জোট কী করে? তারা কেবল মানুষ খুন করতে পারে।’

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলনের সভাপতিত্বে জনসভায় আওমী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা স্থানীয় ও আশপাশের জেলার সংসদ সদস্য, জেলার বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা বক্তব্য রাখেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভাকে কেন্দ্র করে বর্নিল সাজে সেজেছে যশোর শহর। ঈদগা মাঠ ছোট হওয়ায় বেশির ভাগ মানুষ পুরো শহর জুড়ে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে শেখ হাসিনার বক্তব্য শোনে মাইকের সামনে দাঁড়িয়ে। সকাল থেকেই যশোর শহর মিছিলের শহরে পরিণত হয়। শ্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে পুরো শহর। অনেকেই সভাস্থলে প্রবেশ করতে না পারায় শহরের প্রায় ১২ টি পয়েন্টে প্রজেক্টরের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য শোনার ব্যবস্থা করা হয়।

জনসভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য পীযুষ কান্তি ভট্টাচার্য, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুউল আলম হানিফ, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ, রণজিত রায়, মনিরুল ইসলাম মনির, স্বপন ভট্টাচার্য, বীরেন শিকদারস প্রমুখ।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১