শিরোনাম

নিজ ভিটায় ফিরে যেতে চাই রুবেল!

স্টাফ রিপোর্টার : | সোমবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০১৭ | পড়া হয়েছে 89 বার

প্রতিবেশীর প্রতিহিংসার শিকার রুবেল দেড় বছর ধরে ঘর ছাড়া। অতঃপর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনাটি ঘটেছে সদর উপজেলার নরসিংসার গ্রামে রোববার (২৪.১২.২০১৭)। রুবেল জানায়, একই গ্রামের বোরহান একজন পরিচিত খারাপ প্রকৃতির লোক। এলাকাবাসী তাকে বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত বলে জানে। গত এক বছর পূর্বে তাকে পুলিশ ধরে নিয়ে যায়। বোরহান মনে করে এই রুবেলই বোরহানকে পুলিশে ধরিয়ে দিয়েছে। শুধু মাত্র এই অজুহাতকে পুঁজি করে দিনের পর দিন শারীরিক ও মানসিকভাবে অত্যাচার করে করে প্রথমে বাড়ি ছাড়া করে। নিজের জন্ম ভিটা থাকা সত্বেও প্রায় দেড় বছর যাবৎ পার্শ্ববর্তী নরসিংসার বাজারের কাছে ভাড়া থাকেন পরিবার পরিজন নিয়ে শুধু মাত্র বোরহানের অত্যাচারের কারণে। তাতেও রেহায় মিলেনি তার। আজ সোমবার (২৫.১২.২০১৭) সন্ধ্যায় সদর হাসপাতালে সার্জারী ওয়ার্ডের পেইং বেডে শুয়ে শুয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া টোয়েন্টি ফোর ডট নেটকে রুবেল জানায়, ‘গত রোববার চাঁন মিয়া মেম্বারের বাড়িতে গেছিলাম একটি খাটের অর্ডার আনার জন্য। আমি কয়েকটা ডিজাইন দেখাইয়া বাড়িতে আসার পথে বোরহান আমাকে আটকিয়ে ছুরি ধরে মাথার বামে এবং বাম হাতের নিচে ঘাই মারে। এতে আমি মারাত্মকভাবে আহত হইলে প্রতিবেশিদের সহায়তায় সদর হাসপাতালে আসি।’ সে জানায়, বোরহান খুবই খারাপ প্রকৃতির লোক এবং এলাকার চিহ্নিত চোর। সে অবৈধ মাদক ব্যবসার সাথেও জড়িত। এছাড়া সে একজন লম্পট ও চরিত্রহীন হিসেবে এই এলাকার মানুষ তাকে চিনে। আমি গরীব মানুষ হিসেবে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিসহ প্রশাসনের নিকট এই জালিমের অত্যাচার থেকে মুক্তি চাই। আমার নিজ ভিটায় ফিরে যেতে চাই।


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১