শিরোনাম

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে

নিজের জীবন নিয়ে শংকিত আখাউড়ার ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম মোস্তফা

বার্তা প্রেরক | সোমবার, ২৫ মার্চ ২০১৯ | পড়া হয়েছে 321 বার

নিজের জীবন নিয়ে শংকিত আখাউড়ার ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম মোস্তফা

আগামী ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিতব্য আখাউড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নিজের প্রচার-প্রচারনা চালাতে পারছেনা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ গোলাম মোস্তফা। তিনি তালা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী অপর প্রার্থী ও বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান মুরাদ হোসেন ভূইয়া ও তার অনুসারীরা বিভিন্নভাবে গোলাম মোস্তফাকে বাঁধা প্রদান ও হুমকি-ধামকি দিচ্ছেন। মুরাদ হোসেন ভূইয়া আখাউড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক। মুরাদ নিজেকে আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হকের প্রার্থী হিসেবে পরিচয় দিয়ে নানাভাবে অপর প্রার্থী গোলাম মোস্তফাকে হুমকি-ধামকি দিচ্ছেন।


সোমবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন নির্বাচনে তালা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী মোঃ গোলাম মোস্তফা।
লিখিত বক্তব্যে গোলাম মোস্তফা অভিযোগ করে বলেন, গত ১৫ মার্চ প্রতীক বরাদ্দ পেয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনী প্রচারের জন্য তার পক্ষে মাইকিং করার সময় কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের তন্তর এলাকায় মুরাদ হোসেনের সমর্থকরা তার ভাড়া করা সিএনজিচালিত অটোরিকসায় হামলা করে নির্বাচনী প্রচারের ব্যবহৃত দুইটি মাইক ও ব্যাটারী ছিনিয়ে নিয়ে যায়। গত ১৯ মার্চ বিকেলে তার প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট অ্যাডভোকেট আলমগীরকে উজানিসার এলাকা থেকে অপহরণ করে নিয়ে যায় মুরাদ হোসেনের সমর্থকরা। খবর পেয়ে এলাকার লোকজন উপজেলার তন্তর এলাকা থেকে অপহৃত আলমগীরকে উদ্ধার করে। গত ১৯ মার্চ উপজেলার খড়মপুর এলাকায় তার প্রচার গাড়িতে হামলা করে মুরাদের সমর্থকরা। বিষয়গুলো তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারি রিটার্নিং অফিসারকে লিখিতভাবে অবহিত করলেও কোন প্রতিকার পাননি।

সংবাদ সম্মেলনে প্রার্থী গোলাম মোস্তফা আরো বলেন, প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মুরাদ হোসেন ভূইয়া বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সদস্য ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের জোরপূর্বক একত্রিত মিটিং করে ঘোষণা দিচ্ছে- আমি মন্ত্রীর প্রার্থী, আমাকে পাশ না করালে তোমাদের কারো মাথা থাকবে না এবং আমি নির্বাচনে না জিতলে তোমাদের সবাইকে মজা দেখাবো।

এ অবস্থায় নিজের প্রাণ নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করে গোলাম মোস্তফা বলেন, যে কোনো সময় মুরাদ হোসেন ভূইয়া ও তাঁর সন্ত্রাসী বাহিনী তাঁকে হত্যা কিংবা গুম করে ফেলতে পারে।
তিনি আরো বলেন, মুরাদ হোসেন ভূইয়ার অব্যাহত হুমকির কারণে আমি কোথাও প্রচার-প্রচারণা চালাতে পারছি না। তেমনি ভোটারদেরও একই প্রশ্ন আমরা ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারব কি না? যদি নিরাপদে ভোট দিতে না পারি তাহলে আমরা ভোট কেন্দ্রে যাব না। এ অবস্থায় আখাউড়া উপজেলা শান্তিপূর্ণ ভোটের জন্য স্থানীয় প্রশাসন, সরকার ও নির্বাচন কমিশনসহ সকলের সহযোগীতা কামনা করছেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন গোলাম মোস্তফার প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট ও আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আলমগীর হোসেন, ধরখার ইউনিয়নের রুটি ওয়ার্ড কৃষকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জমির হোসেন ও আখাউড়া উপজেলা জাতীয় ছাত্র সমাজের সহ-সভাপতি শেখ সানি।
উল্লেখ্য আখাউড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আবুল কাশেম ভূইয়া ও মহিলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন নাসরিন আলেয়া।

এ ব্যাপারে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মুরাদ হোসেন ভূইয়ার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, নির্বাচনে নিশ্চিত ভরাডুবি জেনে গোলাম মোস্তফা তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপ-প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১