শিরোনাম

ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান

নাসিরনগরে বাল্য বিয়ের হাত থেকে কিশোরীর রক্ষা ॥ বরের পলায়ন

নাসিরনগর প্রতিনিধি | বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯ | পড়া হয়েছে 184 বার

নাসিরনগরে বাল্য বিয়ের হাত থেকে কিশোরীর রক্ষা ॥ বরের পলায়ন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে ১৫ বছরের এক কিশোরী। এ সময় বিয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায় বর রুনি ঋষি-(১৭)। এসময় ভ্রাম্যমান আদালত বর ও কনে পক্ষকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন এবং মেয়ে প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেনা মর্মে তাদের অভিভাবকদের কাছ থেকে মুচলেকা আদায় করেন।

ভ্রাম্যমান আদালত সূত্রে জানা গেছে, নাসিরনগর উপজেলার কামারগাঁওয়ের রাখাল ঋষির ছেলে রুনি ঋষি-(১৭) এর সাথে দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল জেলার বিজয়নগর উপজেলার হরষপুর ইউনিয়নের হরষপুর গ্রামের ১৫ বছরের এক কিশোরীর। ওই কিশোরী ঢাকায় বসবাস করতো।
গত মঙ্গলবার সকালে ওই কিশোরী নাসিরনগর উপজেলা সদরের কামারগাঁওয়ে তার প্রেমিকের বাড়িতে চলে আসে। মঙ্গলবার রাতে তাদের বিয়ে হওয়ার কথা ছিলো।


গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিষয়টি জানতে পেরে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তাহমিনা আক্তার মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পুলিশ নিয়ে হাজির হন ছেলের বাড়িতে। এ সময় পুলিশ দেখে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায় বর রুনি ঋষি-(১৭)। পরে ভ্রাম্যমান আদালত বরের পিতা মাতা, কনে ও কনের দুই মামাকে আটক করে।

পরে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তাহমিনা আক্তার বাল্য বিয়ের কুফল সম্পর্কে তাদেরকে অবহিত করেন ও ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে বরের বাবা রাখাল ঋষিকে ৫ হাজার টাকা ও কনের মামা নয়ন ঋষিকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন। পরে ভ্রাম্যমান আদালত কিশোরী কনেকে তার মামার হেফাজতে দিয়ে মেয়ে প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবেন না মর্মে তার কাছ থেকে মুচলেকা আদায় করেন।
এ ব্যাপারে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাকারী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তাহমিনা আক্তার জানান, বর ও কনে পক্ষকে মুচলেকা নিয়ে বিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে এবং বাল্য বিয়ের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১