শিরোনাম

নাসিরনগরে ছেলে ধরার হাত থেকে মাদ্রাসা ছাত্র উদ্ধার

নাসিরনগর প্রতিনিধি | বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০১৯ | পড়া হয়েছে 271 বার

নাসিরনগরে ছেলে ধরার হাত থেকে মাদ্রাসা ছাত্র উদ্ধার

বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০১৯ বেলা অনুমান ৪ ঘটিকার সময় জেলার নাসিরনগর উপজেলার বুড়িশ্বর ইউনিয়নের আশুরাইল জুম্মাহাটি নামক সরাইল নাসিরনগর, ফান্দাউক মহাসড়কের পাশে ছেলে ধরার হাত থেকে এক মাদ্রাসা ছাত্রকে উদ্ধার করেছে জনতা।

জানা গেছে ওই মাদ্রাসা ছাত্রের বাড়ি উপজেলার কুন্ডা ইউনিয়নের মছলন্দপুর গ্রামে। ওই ছাত্রের নাম মোঃ মাসুম মিয়া (১৩)। তার পিতার নাম মোঃ ছুরুক মিয়া, মাতার নাম নূর জাহান বেগম। ওই ছাত্র ও তার অভিভাবক জানায় মাসুম গোকর্ণ ইউনিয়নের জেঠাগ্রাম চটিপাড়া সাহেব বাড়ি মাদ্রাসার হাফিজি পড়ুয়া ছাত্র।


থানায় মাছুম ও তার মা বাবা আত্মীয়স্বজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে, বেলা ৩ ঘটিকার সময় মাসুমের মা নূরজাহান বেগম নাসিরনগর কলেজ মোড় থেকে মাদ্রাসা যাওয়ার উদ্দ্যেশে সি.এন.জিতে তুলে দেয় মাসুমকে, সি.এন.জিটি কলেজের দক্ষিণ-পূর্বদিকে মোস্তাক হুজুরের মাদ্রাসার নিকট গিয়ে থেমে যায়। পরে ড্রাইভার অন্য একটি সি.এন.জিতে তুলে দেয় মাসুমকে। পরের ড্রাইভার মাসুম কে সি.এন.জিতে তুলে পেছনে সিটে বসে থাকা এক যুবক সহ তারা দুইজনে মাছুমকে মুখে গামছা বেধে হাত দুটি পিছন দিকে বেঁধে সিটের উপরে শুয়াইয়া উত্তর দিকে ফান্দাউক রোডে যেতে শুরু করে।

মাছুম জানায় আশুরাইল জুম্মাহাটির কাছে যাওয়ার পর সে অনেক কষ্ট করে হাত ও মুখের বাঁধন খুলে চিৎকার দিতে শুরু করলে, পাশে বসে থাকা লোকটি মাসুমকে গাড়ি থেকে ধাক্কা দিয়ে খালের নিচে ফেলে দিয়ে দ্রুত গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায়। মাছুমে চিৎকারে লোকজন দৌড়ে এসে থানায় খবর দিলে কর্তব্যরত অফিসার এ.এস. আই সালেহ্ আহম্মদ, ঘটনার স্থল থেকে মাসুমকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

খবর পেয়ে মাছুমের মা বাবা আত্মীয়স্বজন ও বিভিন্ন মাদ্রাসার শিক্ষকরা থানায় চলে আসে। পরে মাছুম কে কুন্ডা ইউ.পি সদস্য মোঃ আব্দুর রাজ্জাক মেম্বারের জিম্মায় ও উপস্থিত লোকজনের সামনে তার মা বাবার কাছে হস্তান্তর করে থানা কর্তৃপক্ষ।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১