শিরোনাম

নাসিরনগরের ঘটনায় প্রশাসনের শিথিলতা ও উদাসীনতা ছিল

স্টাফ রিপোর্টার : | শুক্রবার, ০৪ নভেম্বর ২০১৬ | পড়া হয়েছে 150 বার

নাসিরনগরের ঘটনায় প্রশাসনের শিথিলতা ও উদাসীনতা ছিল

জাসদ (ইনু) সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার এমপি বলেছেন, নাসিরনগরে হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় উপসনালয় ও ঘর-বাড়িতে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা আমরা পরিকল্পিত বলে মনে করি।
তিনি গত বৃহস্পতিবার জাসদের একটি প্রতিনিধিদলকে নিয়ে সরজমিনে নাসিরনগরে ক্ষতিগ্রস্ত হিন্দু সম্প্রদায়ের মন্দির ও ঘর-বাড়ি পরিদির্শন শেষে দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, দেশকে অস্থিতিশীল করার জন্য, দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার জন্য পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটনো হয়েছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রতির দেশ। ধর্ম যার যার রাষ্ট্র সবার। ধর্মের প্রতি যে কোন ধরনের আঘাত আমরা সইতে নারাজ। তিনি বলেন, নাসিরনগরের ঘটনায় প্রশাসনের শিথিলতা ও উদাসীনতা ছিল। তিনি বলেন, এ ঘটনার তদন্ত চলছে। যারা দায়ী তাদের বিচার করা হবে। সকল নাগরিকের নিরাপত্তা দেওয়ার দায়িত্ব রাষ্ট্রের। সংবাদ সম্মেলনে তিনি রাষ্ট্রীয়ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত মন্দির, বাড়ি-ঘর নির্মান ও সংস্কার করে দেওয়ার দাবি জানান। তিনি বলেন, সরকারিভাবে ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা করে তাদেরকে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।
শিরিন আখতার এমপি আরো বলেন, আমরা ১৪ দল ক্ষমতায় আছি। দেশে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হচ্ছে। কিন্তু আমাদের সরকারকে বেকায়দায় ফেলার জন্য আমাদের প্রতিপক্ষরা নানা ধরনের ষড়যন্ত্র করছে। বাংলাদেশকে অচল করে দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, দেশকে অস্থিতিশীল ও বেকায়দায় ফেলার কোন ধরনের ষড়যন্ত্র বরদাসত করা হবেনা।
তিনি বলেন, ৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশকে যেভাবে সকল ধর্মের লোকজন মিলে জয়ী করেছে, এখনো অসম্প্রায়দিক বাংলাদেশ গঠনে সকলকে একসাথে কাজ করতে হবে।
সংবাদ সম্মেলনে জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আনোয়ারুল হক, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক জুলফিকার মান্নান জামি, সদস্য রোকেয়া সুলতানা আঞ্জু, জেলা জাসদের সভাপতি অ্যাডভোকেট আখতার হোসেন সাঈদসহ দলীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০