শিরোনাম

নবীনগরে ভন্ডপীর গ্রেফতার

প্রতিনিধি | সোমবার, ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ | পড়া হয়েছে 654 বার

নবীনগরে ভন্ডপীর গ্রেফতার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে পীরের ছদ্দবেশে টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগে এক ভন্ডপীরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আর অভিযোগকারি এক ভক্তের আত্মসাৎকৃত টাকা ফেরত দেওয়ার মুচলেকায় মুক্তি পেলেন ওই ভন্ড পরীরের স্থানীয় এক মহিলা এজেন্ট। ওই ভন্ডপীরের ভক্ত প্রতারনার শিকার পৌর সদর মনতলা গ্রামের মোসাম্মৎ জুবেদা বেগম এর স্বামী প্রবাসী মোস্তাফিজুর রহমান মুসা এর দায়ের করা প্রতারনার মামলায় গত সোমবার পুলিশ তাকে জেল হাজতে প্রেরন করে। দীর্ঘদিন ধরে ওই ভন্ড পীর এজেন্টের মাধ্যমে এলাকার সহজ সরল মহিলাদের ধর্মীয় নানা অপব্যখ্যায় ভুলিয়ে ভালিয়ে ভক্ত বানিয়ে লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। তার নাম মোঃ আনোয়ার হোসেন (৪৮), পিতা-মো. আবদুল জহির বাড়ি কুমিল¬া জেলার দেবীদ্বার উপজেলার ফতেহাবাদ গ্রামে। তার নবীনগর উপজেলার এজেন্টের নাম মোসাম্মৎ শাহ্নাজ আক্তার কবিতা, স্বামী ব্যবসায়ী মো. রফিকুল ইসলাম সওদাগর বাড়ি নবীনগর পৌরসদর পদ্মপাড়ায়।
অভিযোগ ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, অভিযোগকারির স্ত্রীর কাছ থেকে ওই স্থানীয় এজেন্ট এক বছর পূর্বে  ওই পীরের ভক্ত বানায়। পরে ধর্মীয় নানা অপব্যাখ্যায় ব্যাংকে টাকা রাখলে সুদ হয়, সুদ খাওয়া হারাম ইত্যাদি বলে পীরের কাছে টাকা রাখলে পীর গাড়ি, জায়গা জমি ইত্যাদি নানা ব্যবসা করে যে টাকা দিবে সেটা সুদবিহীন লাভ হবে এমন লোভনীয় ব্যবসার কথা বলে কয়েক দফায় ৩ লক্ষ ৯৪ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। গত তিন মাস আগে তার স্বামী বিদেশ থেকে দেশে আসলে স্বামীর কাছে টাকার হিসাব না দিতে পারায় ভন্ডপীর ও এজেন্টের এসব কর্মকান্ড ফাঁস হয়ে যায়। পরে মুসা থানা পুলিশের আশ্রয়প্রার্থী হলে নারয়নপুর গ্রামের আস্তানায় অভিযান চালিয়ে ওই এজেন্টসহ ভন্ড পীরকে আটক করে। পরে থানার কম্পাউন্ডে সালিশের মাধ্যমে ২ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা ফেরত দেওয়ার রায় হলে ওই পীরের এজেন্ট কবিতা বেগমের স্বামী জিম্মাদার হয়ে মুচলেকা দিয়ে স্ত্রীকে ছাড়িয়ে নিয়ে যায়। আর পুলিশ ওই ভন্ড পীরকে জেলা হাজতে প্রেরন করে।


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০