শিরোনাম

দেখার কেউ নেই : খুপড়িগুলোর দিকে নজর দিন

স্টাফ রিপোর্টার : | বৃহস্পতিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | পড়া হয়েছে 106 বার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জমে উঠেছে ফাস্টফুডের ব্যবসা। বেশী মুনাফা হওয়ায় গত কয়েক বছরে বিভিন্ন নামে শহরে বেশ কয়েকটি ফাস্টফুডের দোকান গড়ে উঠে। বেচা-কেনাও হচ্ছে দেদারছে। অভিভাবকদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে স্কুল-কলেজে পড়–য়া কিছু ছেলে-মেয়ে ফাস্টফুডের দোকানে আড্ডা দেয় ঘন্টার পর ঘন্টা। উঠতি বয়সী কাস্টমারদের বাড়তি “নিরাপত্তা” দিতে বেশ কিছু ফাস্টফুডের দোকানে নির্মান করা হয়েছে ছোট ছোট খুপড়ি। আর এই খুপড়িগুলোই পছন্দ টিনএজদের কাছে। কাছের মানুষদেরকে নিয়ে এসব খুপড়িতে ঘন্টার ঘন্টার পর সময় কাটায় উঠতি বয়সী ছেলে মেয়েরা। এসব ঘটনায় উদ্বিগ্ন শহরের অভিভাবক মহল। শহরের জেল রোডে অবস্থিত বহুতল বিশিষ্ট একটি ভবনের উপরতলায় অবস্থিত একটি ফাস্টফুডের দোকানের নাম এখন শহরবাসীর মুখে মুখে।

অভিযোগ রয়েছে ওই ভবনে থাকা একটি আবাসিক হোটেলে চড়া ভাড়া পরিশোধ করে দিনের বেলায় প্রেমিক জুটি এসে সময় কাটায় ঘন্টার পর ঘন্টা। শহরবাসীর দাবির মুখে মাস ছয়েক আগে একবার ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালানো হয় ওই ভবনে। তখন ভ্রাম্যমাণ আদালত হোটেল থেকে কয়েক জোড়া প্রেমিক-প্রেমিকাকে আটক করে। পরে প্রেমিকারা প্রবাসীদের স্ত্রী হওয়ায় (সংসার যাতে ভেঙ্গে না যায়) তাদেরকে ছেড়ে দেওয়া হয়। অভিযোগ রয়েছে ওই ভবনের আবাসিক হোটেল ও ফাস্টফুডের দোকানের এখন রমরমা ব্যবসা। প্রতিদিন সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে ছেলে মেয়েরা আসে ওই ফাস্টফুডের দোকানে। পরে তারা ওই দোকানের খুপড়ি গুলোতে ঢুকে পড়ে। উঠতি বয়সীদের এসব বেহায়াপনা দেখে ভদ্রলোকেরা লজ্জায় মুখ ঢেকে ফেলে।
অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে ওইসব খুপড়িগুলোর দিকে নজর দিতে আইনশৃংখলা বাহিনীর প্রতি আহবান জানান।


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১