শিরোনাম

আশুগঞ্জ চর সোনারামপুরের শিক্ষার্থীদের

দিনের আলোয় একমাত্র সম্বল

| শুক্রবার, ১০ নভেম্বর ২০১৭ | পড়া হয়েছে 195 বার

দিনের আলোয় একমাত্র সম্বল

রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আশুগঞ্জ উপজেলার চর সোনারামপুরের স্কুল-কলেজ পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রীরা দিনের আলোয় প্রতিদিনের পড়াশুনার কাজটুকু সেরে নিচ্ছে। বিদ্যুৎতের কাছে তারা হার মানতে চায় না। যদিও চোখের সামনে বিদ্যুৎতের আলোর জলমল রশ্মি দেখা যায় তবু রাতের বেলায় তেলের (কুপি) প্রদীপ ব্যববহার করে পড়াশুনার প্রাত্যহিক কাজটুকু সেরে নেয় তারা। ব্যয় বহুল তেল সংরক্ষনের জন্য তারা অধ্যয়ন দিনের আলোই বেছে নিচ্ছে। যদিও কিছু কিছু স্বচ্ছল পরিবারে সৌর প্যানেলের ব্যবস্থা থাকলেও রাতের বেশি সময় এই আলো ব্যবহার করে পড়াশুনার কাজ করা যাচ্ছে না বলে জানান শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার আলো ছড়াতে চর সোনারামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। সাক্ষরতার হারও অতীতের চেয়ে বেশি বেড়েছে। কিন্তু বিদ্যুতের অভাবে দরিদ্র শিশুদের শিক্ষা বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

চর সোনারামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষক জানান, ছেলে ও মেয়েরা স্কুলে পড়াশুনা করে। তারা আধুনিক জ্ঞান অর্জনে গভীর আগ্রহী। কিন্তু বিদ্যুৎতের কারনে বিদ্যালয়ে তাদের অধ্যয়ণ কঠোরভাবে ব্যাহত হয় এবং এই কারণেই তাদের উচ্চ শিক্ষার জন্য প্রাথমিক শিক্ষা সম্পূর্ণ করা কঠিন হয়ে পড়ছে।


বিদ্যুৎ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী চন্দন কুমার সূত্রধর বলেন, চর সোনারামপুরের বাসিন্দাদের বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য এটি অত্যন্ত ব্যয় বহুল। তবে, তিনি নিশ্চিত করেছেন যে তারা চরের লোকদের জন্য বিদ্যুৎ সরবরাহের বিকল্প উপায় খুঁজতে চেষ্টা করছে।

উল্লেখ্য যে, শতবর্ষী এই আশুগঞ্জ চর সোনারামপুরে বর্তমানে প্রায় ৮ হাজার মানুষ বসবাস করে। অধিকাংশ পরিবারই দরিদ্র এবং মাছ ধরার (জেলে) পেশাতে নিযুক্ত।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০