শিরোনাম

ডাস্টার দিয়ে পিটিয়ে ছাত্রের হাড় ফাটালেন শিক্ষক

| বৃহস্পতিবার, ০৮ মার্চ ২০১৮ | পড়া হয়েছে 183 বার

ডাস্টার দিয়ে পিটিয়ে ছাত্রের হাড় ফাটালেন শিক্ষক

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল উপজেলায় শিক্ষকের ডাস্টারের আঘাতে ইনজামুল হক চৌধুরী নামে এক স্কুলছাত্রের কনুইয়ের হাড় ফেটে যায়।

বুধবার (০৭.০৩.২০১৮) সন্ধ্যায় ওই ছাত্রের অভিভাবক এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) উম্মে ইসরাতের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।


আহত ইনজামুল উপজেলার শাহাজাদাপুর ইউনিয়নের দেওড়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র। সে দেওড়া গ্রামের সারোয়ার আহমেদ চৌধুরীর ছেলে।

লিখিত অভিযোগ ও আহত ছাত্রের পরিবার সূত্রে জানা যায়, সোমবার টিফিনের পর বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মনিজুর রহমান ষষ্ঠ শ্রেণির ‘ক’ শাখায় পাঠদানের জন্য যান। এ সময় ইনজামুল, সুজন মিয়া ও মাসুদ মিয়া খেলার ছলে শ্রেণিকক্ষের ভেতরে একে অপরের সাথে ধাক্কাধাক্কি করছিল। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মনিজুর তাদের পেটাতে শুরু করেন। একপর্যায়ে ইনজামুলের বাম হাত চাপ দিয়ে ধরে কনুইয়ে ডাস্টার দিয়ে আঘাত করেন তিনি। এতে ইনজামুল অসুস্থ হয়ে পড়ে। মঙ্গলবার সকালে তার হাত ফুলে যায়। এমনিতেই সেরে যাবে ভেবে তাকে চিকিৎসকের কাছে নেওয়া হয়নি। পরে বুধবার দুপুরে ব্যথা অনেক বাড়লে পরিবারের লোকজন তাকে সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে তার বাম হাতের কনুইয়ের এক্সরে করিয়ে হাড়ে ফাটল দেখতে পান চিকিৎসক। পরে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে ইনজামুলের হাতে প্লাস্টার করানো হয়।

ইনজামুলের বাবা সারোয়ার আহমেদ চৌধুরী বলেন, লিখিতভাবে ইউএনও’র কাছে অভিযোগ দিয়েছি। চিকিৎসক ইনজামুলকে এক মাস বিশ্রাম নিতে বলেছেন।

এ ব্যাপারে জানতে ওই শিক্ষকের মোবাইল ফোনে একাধিকবার চেষ্টা করলেও তিনি ফোন ধরেননি।

প্রধান শিক্ষক মো. বিলাত খাঁ জানান, মনিজুর রহমান অভিযোগের দায় স্বীকার করে ইউএনও স্যারের কাছে মুচলেকা দিয়েছেন। এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ইউএনও উম্মে ইসরাত বলেন, অভিযোগ পেয়ে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিলাত খাঁ ও সহকারী শিক্ষক মনিজুর রহমানকে আমার কার্যালয়ে ডেকে আনা হয়েছিল। প্রাথমিকভাবে ওই শিক্ষক অপরাধ স্বীকার করে মুচলেকা দিয়েছেন। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১