শিরোনাম

জেলা তথ্য অফিসের ব্যবস্থাপনায় আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

| শনিবার, ২৪ মার্চ ২০১৮ | পড়া হয়েছে 116 বার

জেলা তথ্য অফিসের ব্যবস্থাপনায় আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা তথ্য অফিসের ব্যবস্থাপনায় স্বল্পোন্নত দেশের স্ট্যাটাস হতে বাংলাদেশের উত্তরণের যোগ্যতা-অর্জনের ঐতিহাসিক সাফল্য উদযাপন উপলক্ষে আজ শনিবার (২৪.০৩.২০১৮) দুপুর ১২টায় সুর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ সঙ্গীতাঙ্গনে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ সহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।


অনুষ্ঠান শুরুতেই ব্রাহ্মণবাড়িয়া স্থানীয় সরকার এর উপ পরিচালক মোহাম্মদ সামছুল হক এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, দারিদ্র্য হ্রাস ও উন্নয়ন অগ্রগতির নতুন মাইলফলক অর্জন করলো বাংলাদেশ। ক্ষুধা ও দারিদ্র্যের বিরুদ্ধে নেয়া পদক্ষেপগুলোর বাস্তবায়নের ফলে উন্নয়নশীল দেশের যোগ্যতা অর্জন করা সম্ভব হলো। আর্থ-সামাজিক খাতের অর্জনগুলো অর্থনৈতিক ভঙ্গুরতা ঝুঁকি কমিয়েছে। এলডিসি ক্যাটাগরি থেকে উত্তরণের জন্য মাথাপিছু আয়, মানব সম্পদ সূচক এবং অর্থনৈতিক ভঙ্গুরতা সূচক এ তিনটির যেকোন দুইটি অর্জনের শর্ত থাকলেও বাংলাদেশ এ তিনটি সূচকের মানদন্ডেই উন্নীত হয়েছে। জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক কাউন্সিলের মানদন্ড অনুযায়ী মাথাপিছু আয় হতে হবে কমপক্ষে ১২৩০ মার্কিন ডলার,বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় তার থেকে বেশি অর্থাৎ ১২৭২ মার্কিন ডলার (সূত্র-সিডিপি) এবং বিবিএস সূত্র মতে-১২৭১ মার্কিন ডলার। মানবসম্পদ সূচকে ৬৬ প্রয়োজন হলেও বাংলাদেশ অর্জন করেছে ৭২ দশমিক ৮(সূত্র-সিডিপি) এবং বিবিএস সূত্র মতে-৭২.৯। অর্থনৈতিক ভঙ্গুরতা সূচকে হতে হবে ৩২ ভাগ বা এর কম যেখানে বাংলাদেশের রয়েছে ২৫ (সূত্র-সিডিপি) এবং বিবিএস সূত্র মতে-২৪.৮।

স্বাগত বক্তব্যে জেলা তথ্য কর্মকর্তা দীপক চন্দ্র দাস বলেন, একটি সুখী সমৃদ্ধ সোনার বাংলা গঠনের প্রত্যয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠিত হয় স্বাধীন বাংলাদেশ। সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে সরকার প্রেক্ষিত পরিকল্পনা ও রুপকল্প ২০২১ বাস্তবায়নের কাজ শুরু করে। ইতোমধ্যে সরকার সফলভাবে সহ¯্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সক্ষম হয়েছে। জাতির পিতার যোগ্য উত্তরসূরি প্রধানমন্ত্রীর সঠিক ও যোগ্য নেতৃত্বের মাধ্যমে বাংলাদেশ আজ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণের সুপারিশ লাভের মধ্য দিয়ে প্রেক্ষিত পরিকল্পনা ও রুপকল্প ২০২১ এর সফল বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে। উন্নয়নের অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় এখন বাংলাদেশ। এ অগ্রযাত্রাকে রুখে কার সাধ্য। এরেই ধারাবাহিকতায় ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ও ২০৪১ সালে বাংলাদেশ পৌঁছে যাবে প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের উন্নত দেশের তালিকায়।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান পিপিএম (বার), জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবের সভাপতি খ.আ.ম রশিদুল ইসলাম এবং উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুস সামাদ আখন্দ।

পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১