শিরোনাম

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতিকে স্থায়ীভাবে বহিস্কারের জন্য কেন্দ্রের চিঠি

প্রতিনিধি | শনিবার, ০৯ এপ্রিল ২০১৬ | পড়া হয়েছে 277 বার

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতিকে স্থায়ীভাবে বহিস্কারের জন্য কেন্দ্রের চিঠি

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের আওয়ামীলীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার আদেশ অমান্য করে দলীয় মনোনীত প্রার্থী ও নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে কাজ করায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া ছাত্রলীগের সভাপতি মাসুম মাসুম বিল্লাহ ও তাঁর অনুসারীদের আগামী তিন দিনের মধ্যে উত্তর দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
গত শুক্রবার ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সাইফুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইন স্বাক্ষরিত একটি চিঠি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের কাছে পাঠানো হয়েছে। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের এক জরুরী সিদ্ধান্ত মোতাবেক কেন বিল্লাহ ও তাঁর অনুসারীদের সংগঠন থেকে স্থায়ীভাবে বহিস্কার করা যাবে না তার কারণ দর্শানোর জন্য ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ চিঠি পাঠিয়েছেন।
চিঠি সূত্রে জানা গেছে, মাসুম বিল্লাহ ও তাঁর অনুসারীরা নৌকার বিপক্ষে প্রচারণায় অংশ নিয়েছে।  দেশনেত্রী শেখ হাসিনা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আ’লীগের মনোনীত প্রার্থীর পক্ষে দলের নেতাকর্মীদে নির্দেশ দিয়েছেন। সকল অঙ্গসংগছনকে তা মেনে কাজ করতে নির্দেশ দিয়েছেন। যারা এই আদেশ অমান্য করবে তাঁদের দল থেকে বহিস্কার করা হবে বলে জানানো হয়েছে। শেখ হাসিনার আদেশ অমান্য করে নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে কাজ করায় আপনাকে ও আপনার অনুসারীদের কেন সংগঠন থেকে স্থায়ীভাবে বহিস্কার করা যাবে না তা আগামী তিন দিনের মধ্যে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে।
উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত ৩১ মার্চ ইউপি নির্বাচনের দ্বিতীয় দফায় নবীনগর উপজেলার ১১টি ইউপিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নবীনগর উপজেলার বীরগাঁও ইউপি থেকে চেয়ারম্যান পদে ছয়জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করেছেন। নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনীন প্রার্থী জহির রায়হান আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী কবির আহমেদের কাছে হেরে যান। বিদ্রোহী প্রার্থী কবির আহমেদ (ঘোড়া প্রতীক) তিন হাজার ৪০ ভোট এবং দলীয় প্রার্থী জহির রায়হান (নৌকা) দুই হাজার ৭৪৯ ভোট পেয়েছেন।
আ’লীগের দলীয় প্রার্থী জহির রায়হান অভিযোগ করে বলেন, কবির আহমেদের ছোট ভাই মো. আল আমিনের নেতৃত্বে জেলা ছাত্রলীগের কতিপয় নেতাকর্মী বিদ্রোহীর পক্ষে কাজ করেছে। বীরগাঁও ইউনিয়নে যুদ্ধাপরাধী গোলাম আজমের এলাকায় ছাত্রলীগের কতিপয় নেতাকর্মীর কারণে নৌকা প্রতীক হেরে গেছে।
বীরগাঁও ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি হোসেন সরকার বলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান কবির আহমেদের ছোট ভাই আল আমিনের নেতৃত্বে জেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে কাজ করায় আ’লীগ প্রার্থী হেরেছে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, জেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে কেন্দ্র পাহারা দিয়ে রেখেছিল। নির্বাচনের দিন তাঁরা ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেনকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে রেখেছিল।


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০