শিরোনাম

গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে বৃত্তিপ্রদান কালে মোকতাদির চৌধুরী এম.পি

ষ্টাফ রিপোর্টার | রবিবার, ০৫ জুন ২০১৬ | পড়া হয়েছে 190 বার

গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে বৃত্তিপ্রদান কালে মোকতাদির চৌধুরী এম.পি

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য, বিশিষ্ট লেখক, মুক্তিযোদ্ধা,পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এম.পি বলেছেন, বর্তমান সরকার শিক্ষার উন্নয়নে, নিরলসভাবে কাজ করছে। দেশকে এগিয়ে নিতে হলে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। তিনি বলেন, বাংলাদেশ পৃথিবীর একমাত্র দেশ যে দেশ সকল শিক্ষার্থীকে বিনামূল্যে বই দেয়।
তিনি আজ রবিবার দুপুরে সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে  ২০১৫-২০১৬ অর্থ বছরে উপজেলা পরিষদের রাজস্ব তহবিলের অর্থায়নে গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে বৃত্তিপ্রদান কালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।
উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোকতাদির চৌধুরী এম.পি আরো বলেন, আমরা চাই ঘরে ঘরে বিল গেটসের জন্ম হোক। তিনি বলেন, চাকুরী, ব্যবসা-বানিজ্য ও রাজনীতি করলে হলে লেখাপড়া করতে হবে। আমাদেরকে মানুষ হতে হবে। আমাদের মধ্যে দেশপ্রেম জাগ্রত করতে হবে। দেশকে ভালোবাসতে হবে। তিনি বলেন, মেয়েরা যদি লেখাপড়ায় এগিয়ে যায় কেউ আমাদেরকে দাবিয়ে রাখতে পারবেনা। তিনি বলেন, আমরা একটি স্বাধীন দেশের জন্য লড়েছিলাম। পাকিস্তান আমাদের সংস্কৃতি ও ভাষার উপর আঘাত করেছিল। পাকিস্তানীরা আমাদেরকে বিভিন্নভাবে জুলুম অত্যাচার করতো। তিনি বলেন, পাকিস্তান আমলে আমাদের শিক্ষার হার ছিল শতকরা ২৭ ভাগ। বর্তমানে আমাদের শিক্ষার হার শতকরা ৫৭ ভাগের উপরে।  আমরা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলাম। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষার জন্য কাজ করছে। তিনি বলেন, আমাদেরকে শিক্ষার হার বাড়াতে হবে। তিনি বলেন, আমাদেরকে আমাদের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানতে হবে। দেশকে ভালোবাসতে হবে। লেখাপড়া না করলে দেশের উন্নয়ন হবেনা।
সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার আবদুস সামাদ আকন্দের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আল-মামুন সরকার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার জান্নাতুল ফেরদৌস, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হাজী মোঃ মহসিন মিয়া ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাত। পরে প্রধান অতিথি ১৬৬ জন শিক্ষার্থীর হাতে বৃত্তির টাকা তুলে দেন।


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০